ঢাকা রোববার, ০৭ জুন ২০২০, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
২৭ °সে

পালং-জাজিরায় ৬০ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ

পালং-জাজিরায় ৬০ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ
পালং-জাজিরায় ৬০ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ। ছবিঃ ইত্তেফাক

করোনাভাইরাস (কভিড ১৯) সংক্রমণ মোকাবেলায় দেশে চলমান সাধারণ ছুটি ঘোষণায় স্থবির হয়ে পড়া সাধারণ মানুষ ও খেটে খাওয়া কর্মজীবীরা একদিকে যেমন হয়ে পড়েছে কর্মহীন, অন্যদিকে তারা মুখোমুখি হচ্ছে খাদ্য সংকটে। তাই বর্তমান পরিস্থিতিতে জনসাধারণের খাদ্য সংকট লাঘবে শুরু থেকেই কাজ করে আসছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও শরীয়তপুর-১ (পালং- জাজিরা) আসনের সংসদ সদস্য মো: ইকবাল হোসেন অপু।

সম্প্রতি তার ব্যক্তিগত উদ্যোগে পালং- জাজিরায় করোনাভাইরাস দুর্যোগকালীন সময়ে পরিস্থিতির শিকার প্রায় ৬০ হাজার পরিবারের মাঝে দৈনন্দিন খাদ্য সামগ্রী ছাড়াও ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া মসজিদের ইমাম, ঋষি সম্প্রদায়, রিক্সা-ভ্যান চালক, দিন মজুর, শ্রমিকসহ পরিস্থিতির শিকার ১৬শ পরিবারের মাঝে নগদ ৮ লক্ষ টাকা প্রদান করা হয়।

আরও পড়ুনঃ ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রবিবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

অন্যদিকে সাম্প্রতিক সময়ে ঘটে যাওয়া ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত মসজিদ-মাদ্রাসা ও পরিবারের খোজ রাখার পাশাপাশি তাদের আর্থিকভাবে সাহায্য করেন শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ ইকবাল হোসেন অপু।

করোনা মহামারীকালীন খাদ্য ও ঈদ উপহার সামগ্রী বণ্টন বিষয়ে শরীয়তপুর সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আমরা স্থানীয় সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপুর নির্দেশক্রমে মানুষের বাড়ি বাড়ি খোজ নিয়ে দুর্যোগকালীন সময়ে পরিস্থিতির শিকার প্রায় ৬০ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছি। শুধু এইটাই না, আমরা রিক্সা-ভ্যান চালক, দিন মজুর, শ্রমিক বিভিন্ন পেশার মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী দেয়া ছাড়াও আর্থিকভাবেও সহায়তা করেছি। সাংসদের ব্যক্তিগত তহবিল ও তার পিতার নামে করা 'সুলতান হোসেন মিয়া ফাউন্ডেশন' তহবিল থেকে এ পর্যন্ত ১৬শ পরিবারের মাঝে সর্বমোট ৮ লক্ষ টাকার আর্থিক সহায়তা করা হয়েছে। তার নির্দেশনা অনুযায়ী যতদিন না পর্যন্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে, ততোদিন এই কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে জানান এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসেন।

এর আগে, সংসদ সদস্য মোঃ ইকবাল হোসেনের নির্দেশে ডাক্তার এবং স্বাস্থ্য কর্মীদের মাঝে পিপিই, গ্লাভস এবং মাস্ক বিতরণ ছাড়া জনসাধারণের মাঝেও ২ হাজার মাস্ক বিতরণ করা হয়। করোনাভাইরাস মোকাবেলায় তার নির্বাচনী আসনের প্রতিটি গ্রামে গ্রামে গিয়ে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণসহ জীবাণুনাশক হ্যান্ড স্যানেটাইজার ও সাবান বিতরণ করা হয়। অন্যদিকে সাংসদের নির্দেশে অসহায় কৃষকের ক্ষেতের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দেয়ার কাজও শরীয়তপুর পালং ও জাজিরার আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগসহ সরকার দলীয় অঙ্গসংগঠনের বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দের পক্ষ থেকে করে দেয়া হয়।

ইত্তেফাক/এমএএম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
০৭ জুন, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন