বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ২৭ আষাঢ় ১৪২৭
২৯ °সে

জমে উঠেছে দেশের ২য় বৃহৎ আমের বাজার

জমে উঠেছে দেশের ২য় বৃহৎ আমের বাজার
রাজশাহীর বানেশ্বরের আমের বাজারটি দেশের দ্বিতীয় বৃহৎ। শনিবার থেকে বাজারে জমে উঠেছে আমের বেচাকেনা। ছবি: ইত্তেফাক

জমে উঠেছে উত্তরাঞ্চলের দ্বিতীয় বৃহত্তম বানেশ্বরের আমের বাজার। ফজলি আমের জন্য বিখ্যাত এই বাজারে এখন ফজলি ছাড়া সব ধরনের আমের কেনাবেচা করতে দেখা গেছে। আরও মাসখানেক চলবে এই বিক্রিবাট্টা। পাওয়া যাবে প্রায় সব জাতের আম। মোকামগুলো থেকে আম কিনে ঢাকা, চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নিয়ে যাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। এছাড়া রাজশাহী শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে আম বিক্রি হচ্ছে। অনলাইনেও প্রচুর আম বিক্রি হচ্ছে বলে জানা গেছে।

শনিবার বানেশ্বর বাজার ঘুরে আমচাষী ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলাপে জানা যায়, বাজারে গোপালভোগ জাতের আম শেষের দিকে। বর্তমানে বেশি পাওয়া যাচ্ছে লখনা ও গুটি আম। অল্প পরিমাণে উঠেছে হিমসাগর (খিরসাপাত) ও ল্যাংড়া। আগামী সপ্তাহখানেকের মধ্যে ল্যাংড়া ও হিমসাগর আম পুরোদমে বাজারে আসবে। শনিবার মানভেদে গোপালভোগ পাইকারী বিক্রি হয়েছে দুই হাজার টাকা থেকে ২৪০০ টাকা মণ (৪০ কেজি)। লখনা বিক্রি হচ্ছে ৮০০ টাকা মণ, হিমসাগর বা খিরসাপাত ১৬০০ থেকে ২০০০ টাকা, ল্যাংড়া ১৮০০ থেকে ২০০০ টাকা এবং গুটি আম ৬০০ থেকে ১২০০ টাকা মণ।

রাজশাহীর কাটাখালীর আম ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাক বলেন, এবছর আমের দাম গতবছরের চেয়ে ভালো। ফলন কম হলেও দাম ভালো থাকায় চাষীরা লাভবান হবেন। এবছর আম ঝরে গেলেও গোপালভোগ আমের ফলন ভালো হয়েছে। দামও ভালো পাওয়া গেছে। বুধবার ২০ মণ গোপালভোগ আম বিক্রি করেছি ২১০০ টাকা মণ হিসেবে। গুটি আম ও লখনা আমের দামও ভালো। হিমসাগর, ল্যাংড়া আম পরিপক্ক হতে আরো সপ্তাহখানেক লাগবে। তখন আমের দাম ভালো পাওয়া যাবে।

আরও পড়ুন: শ্যালিকার বিষপানের খবরে দুলাভাইয়ের আত্মহত্যার চেষ্টা

আড়ানীর আমচাষী আলতাফ হোসেন বাদশা বলেন, আমের মৌসুমে তিনি চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় প্রতিদিন এক ট্রাক আম দিতেন। এবার তিন/চার দিনে এক ট্রাক দিচ্ছেন। এখন লখনা ও হিমসাগরের দাম কিছুটা কম। সপ্তাহখানেকের মধ্যে পুরোদমে বাজারে উঠলে এসব আমের দামও বাড়বে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাজশাহীর উপ-পরিচালক মো. শামসুল হক জানান, গোপালভোগ আম শেষের দিকে। হয়তো বাজারে আর ৩/৪ দিন আর পাওয়া যেতে পারে। এখন বাজারে অল্প পরিমাণে উঠতে শুরু করেছে খিরসাপাত, হিমসাগর ও লখনা।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের চাঁপাইনবাবগঞ্জের উপ-পরিচালক নজরুল ইসলাম বলেন, দুই/চারদিনের মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম বাজারে উঠবে। আগামী ১৩ জুন থেকে ডাকবিভাগের ট্রাকে বিনা ভাড়ায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম ঢাকায় যাবে। এছাড়া শুক্রবার থেকে স্পেশাল ম্যাঙ্গো ট্রেনে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম ঢাকায় পৌঁছানো হচ্ছে।

ইত্তেফাক/এসি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত