বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭
২৮ °সে

কুমিল্লায় প্রকৌশলীকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবি

কুমিল্লায় প্রকৌশলীকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবি
[ছবি: ইত্তেফাক]

কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলা প্রকৌশলী আহসান আলীকে তাঁর সরকারি অফিস কক্ষে প্রবেশ করে স্থানীয় কয়েকজন ঠিকাদার ও তাদের সহযোগী কর্তৃক লাঞ্ছিত করার ঘটনায় জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতারসহ বিচারের দাবি জানিয়েছে প্রকৌশলীদের সংগঠন ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন (আইইবি) কুমিল্লা কেন্দ্রের নেতৃবৃন্দ। শনিবার (৪ জুলাই) দুপুরে নগরীর শাকতলায় সংগঠনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে তারা এ দাবি জানান।

লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের কুমিল্লা কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মো. রহমত উল্লাহ কবির বলেন, চট্টগ্রাম বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী কার্যালয়ের এক আদেশে দাউদকান্দি উপজেলা উপসহকারী প্রকৌশলী মো. আবদুল কাদেরকে বদলী করা হয়। বিধি মোতাবেক উপজেলা প্রকৌশলী আহসান আলী তাকে ছাড়পত্র প্রদান করেন। বিষয়টি জেনে গত বৃহস্পতিবার (২ জলাই) বিকালে স্থানীয় কয়েকজন ঠিকাদার সঙ্গীয় লোকজন নিয়ে উপজেলা প্রকৌশলীর অফিস কক্ষে প্রবেশ করে উপসহকারী প্রকৌশলীকে কেন ছাড়পত্র দেয়া হলো এ নিয়ে তার সাথে অশালীন আচরণ শুরু করে। একপর্যায়ে তারা অফিসের জিনিসপত্র ছুঁড়ে ফেলে এবং তাকে মারধর ও লাঞ্ছিত করে।

পরে তাকে কক্ষে রেখে বাহির থেকে দরজায় তালা লাগিয়ে অবরুদ্ধ করে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে প্রায় ২ঘণ্টা পর তিনি উদ্ধার হন। পরে ওই প্রকৌশলী হামলাকারীদের বিচার দাবি করে দাউদকান্দি মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (নং ১১০) করেন।

সংবাদ সম্মেলনে প্রকৌশলীর উপর হামলাকারীদের গ্রেফতারসহ কর্মক্ষেত্রে নিরাপদ পরিবেশে দায়িত্ব পালনের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দাবি জানানো হয়। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে প্রকৌশলী মীর ফজলে রাব্বী, অধির চন্দ্র মজুমদার, আবদুল মতিন, শাহ আলম, সাইফুল ইসলাম, সুমন তালুকদার, রায়হানুল আলম, খন্দকার মাহমুদুল আশরাফসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে লাঞ্ছনার শিকার উপজেলা প্রকৌশলী আহসান আলী বলেন, ‘অনৈতিক দাবি পূরণ না করায় দীর্ঘ দিন ধরেই স্থানীয় কয়েকজন ঠিকাদার আমার উপর ক্ষুব্ধ ছিল। এরই মধ্যে বদলীর আদেশ পাওয়া উপসহকারী প্রকৌশলীকে ছাড়পত্র দেয়ায় ওই ঠিকাদাররা লোকজন নিয়ে আমার সরকারি দপ্তরে প্রবেশ করে আমার উপর হামলা চালায়। পরে তারা কক্ষে তালা দেয়াসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা অপপ্রচার চালায়। এ বিষয়ে থানায় জিডি করেছি। আমি হামলাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তি দাবি করছি।’

দাউদকান্দি মডেল থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, ওই প্রকৌশলীর দায়ের করা জিডির বিষয়ে তদন্ত চলছে।

ইত্তেফাক/এমআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত