বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭
৩২ °সে

লালমনিরহাটে ২২ হাজার পরিবার পানিবন্দী 

লালমনিরহাটে ২২ হাজার পরিবার পানিবন্দী 
পানিবন্দী হাজারো মানুষ। ছবি : দৈনিক ইত্তেফাক

লালমনিরহাটের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্য অনুযায়ী তিস্তা নদীর পানি ডালিয়া পয়েন্টে আজ রবিবার সন্ধ্যা ছয়টায় বিপৎসীমার ৩০ সেন্টিমিটার ওপরে এবং ধরলা নদীর পানি বিপৎসীমার ৪৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে জেলার পাঁচটি উপজেলায় ২০টি ইউনিয়নের ২২ হাজার পরিবারের প্রায় ৮০হাজার মানুষ পানিবন্দী রয়েছেন। পানিবন্দী মানুষগুলো মানবেতর জীবনযাপন করছে। সেইসাথে শুকনা খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে।

জানা যায়, জেলার পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রাম, হাতীবান্ধা উপজেলার সানিয়াজান, গড্ডিমারী, সিঙ্গিমারী, সিন্দুর্ণা, ডাউয়াবাড়ী, পাটিকাপাড়া, কালীগঞ্জ উপজেলার ভোটমারী, তুষভান্ডার, কাকিনা, আদিতমারী উপজেলার মহিষখোঁচা লালমনিরহাট সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ, গোকুন্ডা, রাজপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে তিস্তা নদীর পানি ঢুকে পড়েছে। ধরলা নদীর পানি সদর উপজেলার মোগলহাট ও কুলাঘাট, বড়বাড়ী ইউনিয়নে অধিকাংশ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এতে নিম্নাঞ্চলের লোকজন পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন দপ্তর জানায়, জেলায় পাঁচটি উপজেলার ২০টি ইউনিয়নের ২২ হাজার পরিবারের প্রায় ৮০হাজার মানুষ পানিবন্দী রয়েছে। বন্যায় তিস্তা ও ধরলা নদীর তীরবর্তী চরাঞ্চল ও নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে ঘরবাড়িতে পানি উঠেছে ও ফসল ডুবে গেছে। বন্যার্তদের সাহায্যের জন্য ১২০ মে. টন জিআর চাল ও নগদ ২ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।

ইত্তেফাক/এএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত