বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭
২৮ °সে

শিবচরের কাঁঠালবাড়ী ঘাট ও পশুরহাট পরিদর্শন করেছেন মাদারীপুরের ডিসি ড. রহিমা খাতুনসহ জনপ্রতিনিধিগণ

শিবচরের কাঁঠালবাড়ী ঘাট ও পশুরহাট পরিদর্শন করেছেন মাদারীপুরের ডিসি ড. রহিমা খাতুনসহ জনপ্রতিনিধিগণ
কাঁঠালবাড়ী ঘাট ও পশুরহাট পরিদর্শন করেছেন ডিসি ড. রহিমা খাতুন। ছবি : ইত্তেফাক

শুক্রবার (৩১ জুলাই) দুপুরে শিবচরের কাঁঠালবাড়ী ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী (দাদা ভাই) ঘাট পরিদর্শনে আসেন মাদারীপুরের নবাগত জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন। এ সময় জেলা-উপজেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিরা বিভিন্ন বাস কাউন্টার, মাইক্রোবাস কাউন্টার, লঞ্চ ঘাট, স্পিড বোট ঘাটসহ বিভিন্ন কাউন্টারে গিয়ে ভাড়া বেশি নিচ্ছে কি না তার খোঁজ নেয় এবং যাত্রীদের কাছে জিজ্ঞাসা করে ভাড়া বেশি আদায় করছে কি না তা দেখার জন্য পুরো ঘাট ঘুরে দেখেন এবং স্বাস্থ্য সম্মতভাবে যাতে চলে নিশ্চিত করতে বলেন জেলা প্রশাসক।

এ সময় তার সাথে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সানজিদা ইয়াসমিন, শিবচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আসাদুজ্জামান, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান বিএম আতাউর রহমান আতাহার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) এম রাকিবুল হাসানসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা। পরে নবাগত জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন শিবচর পৌরসভার ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী (দাদা ভাই) উপশহরের অস্থায়ী পশুর গরুর হাট পরিদর্শন করেন। এ সময় জেলা প্রশাসক পৌর মেয়র মো. আওলাদ হোসেন খান এর কাছ থেকে অস্থায়ী পশুর গরুর হাট সম্মন্ধে বিভিন্ন খোঁজ খবর নেন।

শুক্রবার শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুট হয়ে দ¶িনাঞ্চলের ঘরমুখো যাত্রী ও যানবাহনের চাপ বাড়তে শুরু করে। সকালে তেমন চাপ না থাকলেও দুপুরের পর শিমুলীয়া থেকে ছেড়ে আসা প্রতিটি ফেরি, লঞ্চ ও স্পিডবোটে ছিল যাত্রী ও যানবাহনের চাপ। গত কয়েকদিন এ রুটে যাত্রী চাপ স্বাভাবিক থাকলেও ঈদ উপলক্ষে শেষ মুহুর্তেই বেশি পরিমানে লোকজন বাড়ি ফিরছে। তবে ফেরি, লঞ্চ ও যানবাহনগুলোতে সামাজিক দূরত্ব মানতে দেখা যায়নি। প্রতিবারের ন্যায় এ ঈদেও যাত্রী নিরাপত্তা নিশ্চিতে ঘাট এলাকায় পুলিশ, র‌্যাব, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ পর্যাপ্ত আইনশৃংখলা বাহিনী নিয়োজিত রয়েছে। এ রুটে ১২টি ফেরি চলাচল করছে। তবে ফেরিগুলো বিকল্প চ্যানেল দিয়ে পারাপারে প্রায় ৪ ঘণ্টা সময় ব্যয় হওয়ায় ঘাট এলাকায় পন্যবাহী শতাধিক ট্রাক পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএর কাঁঠালবাড়ী লঞ্চ ঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আক্তার হোসেন বলেন, এ নৌরুটে ৮৭টি লঞ্চ ও দুই শতাধিক স্পিডবোট চলাচল করছে। এছাড়া স্রোতের তীব্রতার কারণে ফেরি চলাচল ব্যাহত হলেও লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। ঘাট এলাকায় আইন-শৃক্সখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ ভ্রাম্যমাণ আদালতের টিম তদারকির জন্য সার্ব¶ণিক রয়েছে। পরিবহনগুলোতে বাড়তি ভাড়া আদায় বন্ধে কাজ করছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ইত্তেফাক/কেকে

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত