হালুয়াঘাটে বন্যার্তদের মাঝে বিএনপি নেতার ত্রাণ বিতরণ

হালুয়াঘাটে বন্যার্তদের মাঝে বিএনপি নেতার ত্রাণ বিতরণ
হালুয়াঘাটে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স [ছবি: ইত্তেফাক]

হালুয়াঘাটে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেছেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স। বুধবার উপজেলার নড়াইল ও বিলডোরা ইউনিয়নের বন্যাকবলিত বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন তিনি।

সকালে নড়াইল ইউনিয়নের আলিশা বাজারঘাট থেকে ট্রলার যোগে পাহাড়ি ঢলের পানিতে প্লাবিত নড়াইল ইউনিয়নের আলিশাবাজার, বাঘমার বিন্না কান্দা, খরাকান্দা, বিলডোরা ইউনিয়নের নৌয়াগাও নালিয়াকান্দাসহ কয়েকটি এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ এবং ত্রাণ বিতরণ করেন।

এ সময় এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, একদিকে করোনা ভাইরাস, অন্যদিকে বন্যার প্রকোপে মানুষ বিপর্যস্ত। মানুষের এই দুঃসময়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে বিএনপি নেতাকর্মীরা মানুষের পাশে আছে এবং সহযোগিতা করে যাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, একক ভাবে কোনো দল বা ব্যক্তির পক্ষে এতো মানুষকে সহযোগিতা করা সম্ভব না। সরকারকেই সেই দায়িত্ব নিতে হবে। কিন্তু করোনা ও বন্যাকালে বর্তমান সরকার সেই দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছে। জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয় বলেই জনগণের সঙ্কটে তাদের কার্যকর ও সমন্বিত ভূমিকা নাই। করোনা ও বন্যা মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ লিপ সার্ভিসেই সীমাবদ্ধ।

তিনি বলেন, ক্ষমতাসীনরা একদিকে মিথ্যাচার, অন্যদিকে দুর্নীতি, লুটপাট করছে। ধোবাউড়া ও হালুয়াঘাটে বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শনের কথা উল্লেখ করে এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, কোথাও সরকারী ত্রাণ বিতরণ করা হয় নাই। অথচ সরকার বলছে পর্যাপ্ত ত্রাণ দিচ্ছে। কিন্তু সরকারী হিসাবেই ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার পিছু ২ কেজি ৫০ গ্রাম চাল ও ৮ টাকা বরাদ্দ আছে। যদিও এগুলোও বিতরণ করা হয় নাই। লোক দেখানোর জন্য কোথাও কিছু বিতরণ করলেও তা দলীয় লোকদের মধ্যে সীমাবদ্ধ।

তিনি সরকারের প্রতি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে পর্যাপ্ত ত্রাণ ও অর্থ সহযোগিতা প্রদান ও কৃষি পুনর্বাসনে পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানান।

ত্রাণ বিতরণকালে হালুয়াঘাট উপজেলা বিএনপি নেতা জয়নাল আবেদীন ফকির, শহীদুল হক খান সুজন, আনোয়ার হোসেন, মোস্তাক আলম রুবেল, হুমায়ুন কবির, রুস্তম আলী, মওলানা ফরিদ হোসেন, দেলোয়ার হোসেন, শ্রমিক দলের আহ্বায়ক আব্দুল গণি, মশিউজ্জামান, যুব দল নেতা মোতালেব হোসেন, সজীব হোসেন নয়ন, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আবদুল্লাহ আল মামুন, ছাত্র দল নেতা মির্জা ফয়সাল আহমেদ রনি, তাজবির হোসেন, আনিসুর রহমান, এমদাদুল হক অনন্ত, অন্তর আকন্দ, শরিফুল ইসলাম জাহিদ, গোলাম রাব্বানী, লোকমান হাসান সোহেল, আল আমিন হৃদয় প্রমুখ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ইত্তেফাক/এমআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত