মেয়ের জামাইয়ের বিরুদ্ধে বৃদ্ধা শাশুড়িকে ধর্ষণের অভিযোগ

মেয়ের জামাইয়ের বিরুদ্ধে বৃদ্ধা শাশুড়িকে ধর্ষণের অভিযোগ
প্রতীকী ছবি

নওগাঁর ধামইরহাটে মেয়ের জামাই ফেরদৌস হোসেনের (৫০) বিরুদ্ধে বৃদ্ধা শাশুড়িকে (৭০) ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ২৯ জুলাই উপজেলার চকশব্দল গ্রামের ঘুকসী খাড়ির পূর্ব পাড়ে ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে।

ধর্ষণের শিকার ওই বৃদ্ধা নারী বাদী হয়ে ওই দিন রাতেই জামাইকে আসামি করে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার পর থেকে জামাই ফেরদৌস হোসেন পলাতক রয়েছেন।

এদিকে ওই নারীর ডাক্তারি সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। ফেরদৌস হোসেন জয়পুরহাট সদর উপজেলার উত্তর জয়পুর (কুঠিবাড়ী ব্রিজ) এলাকার মৃত ছফের আলীর ছেলে।

জানা গেছে, ওই নারীর বাড়ি উপজেলা শল্পী বাজারে । প্রায় ২০ বছর আগে তার মেয়ে রোজিনার সাথে ফেরদৌসের বিয়ে হয় । মেয়ের বিয়ের ৪ বছর পর তার স্বামী মারা গেলে তিনি কুশের ঝাঁটা তৈরি করে মানুষের বাড়ি বাড়ি বিক্রি করে সংসার চালাতেন। বিয়ের পর থেকে তার বাড়ির পাশে সরকারি খাস জমিতে বসবাস শুরু করেন মেয়ে জামাই । জামাই কৃষি কাজসহ বিভিন্ন ধরনের কাজ করে সংসার চালাতেন ।

আরো পড়ুনঃ ঈদ শেষে দৌলতদিয়া ঘাটে কর্মমুখী মানুষের ভীর! যানবাহনের দীর্ঘ লাইন

ধামইরহাট থানায় মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ২৯ জুলাই (বুধবার) সকালে শ্বাশুড়ি তাঁর জামাই (মেয়ের স্বামী) ফেরদৌস হোসেনকে সাথে নিয়ে উপজেলার উমার ইউনিয়নের চকশব্দল গ্রামের ঘুকসী খাড়ী এলাকা থেকে ঝাঁটা তৈরির কুশ (বিন্না খেড়) কাটতে যান। বিকেলে কুশ কেটে বাড়ি ফেরার পথে মাঠের মধ্যে জামাই ফেরদৌস হোসেন শাশুড়িকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করেন । এতে অসুস্থ হয়ে পরেন তিনি। এমন পরিস্থিতির তাকে ভ্যান যোগে বাড়িতে পৌঁছে দেন জামাই ফেরদৌস। ওই রাতে শাশুড়ি বাদী হয়ে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

ধামইরহাট ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মমিন বলেন, ওই নারী বাদী হয়ে মেয়ের জামাই ফেরদৌস হোসেনেকে আসামি করে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। এছাড়া নওগাঁ সদর হাসপাতালে গত বুধবার তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। অভিযুক্ত ফেরদৌস হোসেনকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

ইত্তেফাক/এমএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত