রংপুরে প্রতিপক্ষের ষড়যন্ত্রে চরম নিরাপত্তাহীনতায় কৃষক মিঠুর পরিবার

রংপুরে প্রতিপক্ষের ষড়যন্ত্রে চরম নিরাপত্তাহীনতায় কৃষক মিঠুর পরিবার
সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল আলিম মিঠু ও তার স্ত্রী মমতাজ বেগম রানী। ছবি: ইত্তেফাক

রংপুরের মিঠাপুকুরে জমি ক্রয় করে বসতবাড়ি ও দোকান-ঘর নির্মাণ করার পর প্রতিপক্ষের হামলা, মামলা এবং ষড়যন্ত্রে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন আব্দুল আলিম মিঠু নামে এক কৃষক ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী এবং তার পরিবার। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকালে রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

ন্যায় বিচারের দাবি জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল আলিম মিঠু ও তার স্ত্রী মমতাজ বেগম রানী বলেন, ‘প্রতিপক্ষ অন্যায়ভাবে লাভের দুরাশায় তাকে এবং তার পরিবারের লোকজনকে বাড়ি ও দোকানঘর এবং জমি থেকে উচ্ছেদ করে চলমান একটি মামলায় সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করছে। সেই অপচেষ্টা থেকেই জমিদাতার সহোদর ছোট ভাই শাহ মোহাম্মদ নুরুল রওশন ও তার স্ত্রী কাওছারী বেগম কল্পনা নিজেদেরকে জমি ও বাসার মালিক দাবি করে সাংবাদিকদের কাছে ভুল তথ্য দিয়ে তার পরিবারকে হেয় করার চেষ্টা করছেন।’

মিঠুর দাবি, আট-নয় বছর ধরে তার পরিবার মিঠাপুকুর থানার সামনে জমিদাতা নাসিম আরা বেগমের নির্মাণকৃত বাসায় ছিলেন। নাসিম আরা বেগমের টাকার প্রয়োজন হওয়ায় পর্যায় ক্রমে তার কাছে সাত শতক (নিম্ন তফসীল বর্ণিত জমি বিগত ০৯/০২/২০২০ তারিখে দলিল নং ১৮২১/২০২০ ও বিগত ৩১/০৫/২০ইং তারিখে ৩৮১৪/২০ মূলে) জমি বিক্রি করেন। জমি কবলা খরিদ করার পর সেখানে ৪ রুম বিশিষ্ট দোকান ও ৩ রুম বিশিষ্ট টিন সেড পাকা বাড়ি নির্মাণ করে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করাসহ ভোগ দখলে আছেন। এ কারণে জমি দাতার চাচাতো ভাই শাহ মো. আনোয়ার সাদাত হোসেন লিমন ও শাহ মো. সাজ্জাদ হোসেন ভিক্টর ওই জমি না পেয়ে ঈর্ষান্বিত হয়ে তাকেসহ তার পরিবারের ওপর হামলা চালায়। বাড়িতে ভাংচুর করে বাসায় তালা দিয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে বাসা বাড়ির তালা থানা পুলিশ কর্তৃক খুলে দিলেও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের তালা এখনও ঝুলছে। বর্তমানে প্রতিপক্ষের একের পর এক ষড়যন্ত্র ও অপচেষ্টায় তিনি ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এসব বিষয়ে আইনি সহায়তা চেয়ে রংপুর রেঞ্জ ও পুলিশ সুপার বরাবর দরখাস্ত দিয়েছেন বলেও জানান।

আরও পড়ুন: শেরপুরের বন অধিদপ্তরে লাগেনি আধুনিকতার ছোঁয়া, খুঁড়িয়ে চলছে দাপ্তরিক কর্মকাণ্ড

তিনি আরও জানান, তার বিরুদ্ধে শাহ মো. আনোয়ার সাদাত লিমন গং রংপুর আদালতে একটি প্রিয়েম্পশন মোকদ্দমা (যাহার মিস কেস মামলা নং- ০৭/২০ চলমান) দায়ের করেন। এখন প্রতিপক্ষ ওই চলমান মামলায় সুবিধা অর্জনের লক্ষ্যে শাহ মো. নুরুল রওশন ও কাওছারী বেগম কল্পনাকে দিয়ে জমি ও বাসার মালিকানা দাবি করানোর পাশাপাশি বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। বর্তমানে তার বাড়ি ও দোকানঘরে হামলা, অগ্নিসংযোগ করাসহ জান মালের ব্যাপক ক্ষতি সাধন এবং তার বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া সন্তানদেরকে মিথ্যা মামলা মোকদ্দমায় জড়ানোর হুমকি দিচ্ছেন বলেও তিনি দাবি করেন। এসময় তিনি প্রশাসনের কাছে ন্যায় বিচার দাবি করেন।

এদিকে জমি বিক্রয়কারী নাসিম আরা বেগম জানান, তার ছোট ভাই ও চাচাতো ভাইয়েরা দলীয় প্রভাবে সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে মিঠু ও তার পরিবারকে জমি থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা করছে। ওই জমির ক্রয় সূত্রে বর্তমান মালিক মিঠু। তার কাছে প্রায় এক বছর আগে কয়েক দফায় টাকা নিয়ে জমি বিক্রয় করেছেন বলেও জানান তিনি।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত