শৈলকুপা পেঁয়াজের দাম মন প্রতি ৪’শ টাকা কমেছে

শৈলকুপা পেঁয়াজের দাম মন প্রতি ৪’শ টাকা কমেছে
ফাইল ছবি।

দেশের অন্যতম প্রধান পেঁয়াজ উৎপাদনকারী এলাকা ঝিনাইদহের শৈলকুপায় পাইকারি বাজারে প্রতি মন পেঁয়াজের দাম ৩’শ টাকা থেকে ৪’শ টাকা পর্যন্ত কমেছে। চাষীরা ঘরের মজুত পেঁয়াজ বিক্রি করায় দাম কমেছে বলে ব্যাপারি ও ব্যবসায়ীরা জানান।

শনিবার শৈলকুপা হাটে প্রতি মন পেঁয়াজ ২ হাজার ৬’শ টাকা থেকে ২ হাজার ৮’শ টাকা দরে বিক্রি হয়। মঙ্গলবার একই হাটে প্রতি মন পেঁয়াজ ৩ হাজার টাকা থেকে ৩ হাজার ২’শ টাকা পর্যন্ত দরে বিক্রি হয়।

শৈলকুপা উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ আকরাম হোসেন জানান, দেশের অন্যতম পেঁয়াজ উপাদনকারি এলাকা ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা। গত মৌসুমে এ উপজেলায় ৬ হাজার ৭’শ হেক্টরে পেঁয়াজ চাষ হয়েছিল। পেঁয়াজ উৎপাদনের পরিমান ছিল এক লাখ ২০ হাজার টন। চাষীর ঘরে এখনো বেশ পেঁয়াজ মজুত আছে।

তিনি আরো জানান, মুড়িকাটি পেঁয়াজ চাষ শুরু হয়ে গেছে। ডিসেম্বর মাসে এ পেঁয়াজ উঠতে শুরু করবে।

ধাওড়া গ্রামের পেঁয়াজ চাষী রোকুনুজ্জামান বলেন, গত মৌসুমে ৫ বিঘা জমিতে পেঁয়াজ চাষ করেন। ৪’শ মন পেঁয়াজ হয়েছিল। ৩’শ মন আগে বিক্রি করেছেন। এক’শ মন পেঁয়াজ মজুত ছিল। কিছু পেঁয়াজ পচে নষ্ট হয়ে গেছে। ৫০ মন পেঁয়াজ মজুত আছে। শনিবার হাটে ২৬’শ টাকা মন দরে ১০ মন পেঁয়াজ বিক্রি করেছেন।

ব্রহ্মপুর গ্রামের চাষি মফিজুল ইসলাম বলেন, গত মৌসুমে ২’শ মন পেঁয়াজ হয়েছিল। ঘরে এখনো ৫০ মন মজুত আছে। আস্তে আস্তে বিক্রি করবেন।

শৈলকুপা হাটে ব্যাপারি আল মামুন বলেন, মঙ্গলবার প্রতি মন ৩ হাজার টাকা থেকে ৩ হাজার ২’শ টাকা পর্যন্ত মন দরে কিনেছিলেন। শনিবার হাটে প্রচুর পেঁয়াজ আমদানি হয়। ২ হাজার ৬’শ টাকা থেকে ২ হাজার ৮’শ টাকা পর্যন্ত মন দরে কিনেছেন।

ব্যবসায়ী মশিউর রহমান বলেন, দাম আরো বাড়বে এ আশায় চাষীরা পেঁয়াজ ধরে রেখেছে। দাম বৃদ্ধির পর আাস্তে আস্তে মজুত পেঁয়াজ বাজারে ছাড়ছে। শনিবার শৈলকুপা হাটে প্রচুর পেঁয়াজ উঠে। অন্তত ২০ ট্রাক পেঁয়াজ দেশের বিভিন্ন স্থানে চালান নিয়ে গেছে ব্যাপারিরা

ইত্তেফাক/এমআরএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত