আমতলীতে বিনা বাধায় খাসের জায়গা দখল

আমতলীতে বিনা বাধায় খাসের জায়গা দখল
দলীয় ও পেশি শক্তির জোরে আমতলীতে খাস জায়গা দখলের অভিযোগ উঠেছে। ছবি: ইত্তেফাক

বরগুনার আমতলী উপজেলা শহরে অবৈধভাবে ঘর উঠিয়ে খাস জমি দখলের অভিযোগ উঠছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, দলীয় ও পেশি শক্তির জোরে আমতলীর আওয়ামী লীগ নেতা সোহাগ প্যাদার মদদে এসব জবরদখল চলছে। তবে জায়গাগুলো দখলের সময় প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন এলাকাবাসী।

বরগুনা জেলা পরিষদে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এ দপ্তর থেকে আমতলীর সদর রোডের খাদায় ঘর তোলার জন্য কাউকে লিজ বা পত্তন দেওয়া হয়নি।

আমতলী উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়, এমইউ বালিকা বিদ্যালয়, সাবেক এমপিএ মফিজ উদ্দিন তালুকদার, সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম সাইদুর রহমান তালুকদার নয়া মিয়াদের বসত বাড়ির সামনে সদর রোডের পাশে খাদার পানির ওপর পিলার পুঁতে মাচা দিয়ে ঘরগুলো উঠানো হয়েছে। আমতলী শহর উন্নয়ন ও সদর রোড নির্মাণের সময় জেলা পরিষদের জমিতে এ খাদটি তৈরি হয়। অবৈধ দখলদারা ঘর উঠিয়ে কিছু নিজেরা ব্যবহার করছে, বাকিগুলো ভাড়া দিয়ে মোটা টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। প্রতিটি ঘরের পেছনেই রয়েছে রান্নাঘর ও পায়খানায় দুষিত হচ্ছে পরিবেশ। দখলদারদের প্রতিটি ঘরে গিয়ে জানা যায় তাদের বৈধ কোনো লিজ বা এ সংক্রান্ত কোনো কাগজপত্র নেই। বর্তমানে আমতলী ডিগ্রি কলেজের সামনে অবৈধ দখলদারা ঘর উঠিয়ে পায়খানা নির্মাণ করে একটি অস্বাভাবিক পরিবেশের সৃষ্টি করেছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান বলেন, আমি আমতলীতে সদ্য যোগদান করেছি। অবৈধ দখলদারদের নির্মাণ করা ঘরগুলো আমার নজরে পড়েছে। শিঘ্রই এগুলো উচ্ছেদের ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মেয়র মো. মতিয়ার রহমান বলেন, শহরের কেন্দ্রস্থল সদর রোড়ের পাশে উপজেলা পরিষদের সামনের এ অবৈধ ঘরগুলো এবং তা সংলগ্ন পায়খানা অহরহ পরিবেশ দুষণ করে চলছে, যা জনস্বাস্থ্যের প্রতি মারাত্মক হুমকি।

ইত্তেফাক/এসি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত