মির্জাপুরে অবৈধ যানবহনে নিত্য দিনের যানজট, দুর্ভোগে পৌরবাসী

মির্জাপুরে অবৈধ যানবহনে নিত্য দিনের যানজট, দুর্ভোগে পৌরবাসী
অবৈধ যানবাহনের চাপে নিত্য দিনের যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। ছবি-ইত্তেফাক

বণিক সমিতি ও পৌর কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনায় মির্জাপুর পৌরসভায় অবৈধ যানবাহনের চাপে নিত্য দিনের যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে বিভিন্ন রোডে চলাচলকারী যাত্রীসহ পৌরবাসিদের চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ রবিবার পৌরসভার বিভিন্ন রোডে গিয়ে দেখা গেছে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজট।

জানা গেছে, ২০০০ সালে মির্জাপুর পৌরসভা গঠিত হলেও পৌরবাসি নানা সমস্যায় জর্জরিত। পৌরবাসির প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে ফুটপাত ও রাস্তাঘাট দখল করে ব্যবসা, ভাঙ্গাচোরা রাস্তা ঘাট, ড্রেনেজ ব্যবস্থা ও তীব্র যানজট। পৌরসভা কর্তৃপক্ষ, মির্জাপুর বাজার বণিক সমিতি এবং উপজেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্ময়হীনতার অভাবে উপজেলা শহর ও পৌরসভার প্রতিটি রাস্তায় অবৈধ যানবহানের চাপে তীব্র যানজট হচ্ছে।

কলেজ রোড, কুমুদিনী হাসপাতাল রোড, কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ রোড, কালিবাড়ি রোড, থানা রোড, বাওয়ার কুমারজানি রোড, কাঁচা বাজার রোড, বংশাই রোডসহ প্রতিটি রাস্তায় ঘন্টার ঘন্টার যানজটে অতিষ্ট যাত্রীরা। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এসব রোডে ব্যাটারি চালিত অটো রিকশা, সাধারন রিকশা, সিএনজি, ভ্যান গাড়ি, পিকআপ, লোড আনলোড ভারী ট্রাক অবৈধ ভাবে চলাচল করায় তীব্র যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।

মির্জাপুর বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও পৌর কাউন্সিলর মো. আলী আযম সিদ্দিকী বলেন, বণিক সমিতির পক্ষ থেকে দিনের বেলায় ভারী যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অটো রিকশার ব্যাপারে ব্যবস্থা নেবেন পৌরসভা ও উপজেলা প্রশাসন।

এ ব্যাপারে পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র চন্দনা দে বলেন, পৌরসভায় প্রায় ৫ শতাধিক অটো রিকশায় অনুমোদন রয়েছে। বন্যার কারণে বিভিন্ন গ্রামাঞ্চল থেকে সহস্রাধিক রিকশা চালকরা শহরে এসে যানজটের সৃষ্টি করছে। বণিক সমিতি ও উপজেলা প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে শহরের যানজট নিরসনের জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক মোস্তাকিম বলেন, কিছু অসাধু চক্র সদরের অধিকাংশ রাস্তা ও ফুটপাত অবৈধ ভাবেস দখল করে ব্যবসা বাণিজ্য করছেন। ফলে পৌরসভা ও উপজেলা শহরবাসির প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে যানজট। সকলের সহযোগিতায় যানজনট নিরসন করা হবে।

ইত্তেফাক/আরকেজি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত