চরফ্যাশনে টর্নেডোর ছোবলে অর্ধশতাধিক বসতঘর বিধ্বস্ত, আহত ১০

চরফ্যাশনে টর্নেডোর ছোবলে অর্ধশতাধিক বসতঘর বিধ্বস্ত, আহত ১০
টর্নেডোর আঘাতে বিধ্বস্ত বসতঘর। ছবি : ইত্তেফাক 

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার আছলামপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ আছলামপুর গ্রামে রবিবার ভোরে আকস্মিক টর্নেডোর আঘাতে অর্ধশতাধিক বসতঘর বিধ্বস্ত হয়েছে।

এ সময় ঘরের নিচে চাপা পড়ে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১০ জন। ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে বসতঘর সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত ৩০টি পরিবার খোলা আকাশের নিচে রয়েছেন। আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত বাকি ২০টি পরিবারের ঘরগুলোও বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

রবিবার সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রুহুল আমিনসহ প্রশাসনের কর্মকর্তা এবং রাজনৈতিক নেতারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তারা ক্ষতিগ্রস্তদের প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দিয়েছেন। আছলামপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, বসতঘর সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত ৩০টি পরিবারের মাঝে প্রশাসনের তরফ থেকে শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

আরো পড়ুন : সাবেক ওসি প্রদীপ ও তার স্ত্রীর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ

টর্নেডোর তাণ্ডবে বিধ্বস্ত ঘর মালিক আবুল কালাম জানান, ভোরে হঠাৎ ঝড় শুরু হয়। কিছু বুঝে উঠার আগেই মাথার উপর থেকে ঘরটি উড়ে যায়। ঝড়টির স্থায়িত্ব ছিল ১০মিনিট।

সারমিন আক্তার জানান, আকস্মিক ঝড় ও বাতাসে তাদের ঘরটি বিধ্বস্ত হলে স্বামী সন্তানসহ ঘরের নিচে চাপা পড়েন তিনি। পড়ে প্রতিবেশীরা তাদেরকে উদ্ধার করেন।

চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রুহুল আমিন জানান, ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ত্রাণ তহবিল থেকে তাৎক্ষণিক ২ টন চাউল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়া এদের পুনর্বাসনের জন্য নগদ অর্থ ও টিন বরাদ্দের প্রক্রিয়া চলছে।

সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, চরফ্যাশন-বেতুয়া সড়কের দুদু মিয়ার পুলের পর থেকে বদ্দারহাট পর্যন্ত মূল সড়কের বাম পাশের প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকার বসত ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে এবং গাছ পালা ভেঙ্গে দুমড়ে মুচড়ে গেছে। টর্নেডোর তাণ্ডবে রেন্ট্রি গাছসহ অসংখ্য গাছ পালা ভেঙ্গে রাস্তার উপর পড়েছে। পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও বিদ্যুৎকর্মী এবং গ্রামবাসী গাছ সরানোর কাজে অংশ নেন।

ইত্তেফাক/ইউবি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত