মির্জাপুরে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় পৌর মেয়র নির্বাচিত হলেন সালমা

মির্জাপুরে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় পৌর মেয়র নির্বাচিত হলেন সালমা
সালমা আক্তার শিমুল : ফাইল ছবি

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র পদে উপনির্বাচনে প্রয়াত মেয়র মো. সাহাদত হোসেন সুমনের সহধর্মীনি সালমা আক্তার শিমুল বেসরকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন।

মঙ্গলবার টাঙ্গাইল জেলার সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা ও মির্জাপুর পৌরসভার উপ নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার এ এইচ এম কামরুল হাসান সালমা আক্তার শিমুলকে বেসরকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত ঘোষণা করে চুড়ান্ত চিঠি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন। বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় তাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন মির্জাপুরের সর্বস্তরের জনগণ।

বুধবার উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মো. শামীম আল মামুন জানান, গত ১১ ফেব্রুয়ারি উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও মির্জাপুর পৌরসভার জনপ্রিয় মেয়র মো. সাহাদত হোসেন সুমন মারা যাওয়ায় মেয়র পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়। ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর চন্দনা দে। দেশে মহামারী করোনা এবং চলমান বন্যার কারণে উপনির্বাচন দিতে বিলম্ব হয়। গত ৭ সেপ্টেম্বর নির্বাচন কমিশন সচিবালয় মেয়র পদে উপ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। উপ নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগের ৭ জন প্রার্থী থাকলেও গত ৮ সেপ্টেম্বর আওয়ামীলীগের জরুরী সভায় প্রয়াত মেয়র সাহাদত হোসেন সুমনের প্রতি শ্রদ্ধা দেখিয়ে ৭ প্রার্থী মেয়র পদে উপ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান। ১২ সেপ্টেম্বর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রয়াত মেয়র সাহাদত হোসেন সুমনের স্ত্রী সালমা আক্তার শিমুলকে দলীয় প্রতীক নৌকা বরাদ্ধ দেন। ১৩ সেপ্টেম্বর উৎসব মুখর পরিবেশে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে সালমা আক্তার শিমুল রিটার্নিং অফিসারের নিকট মনোয়নপত্র দাখিল করেন। ১৪ সেপ্টেম্বর মনোয়নপত্র যাচাই বাছাই শেষে সালমার মনোয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন রিটার্নিং অফিসার। ২১ সেপ্টেম্বর ছিল মনোয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। উপ নির্বাচনে মেয়র পদে অন্য প্রার্থী মনোয়নপত্র জমা না দেওয়ায় মঙ্গলবার একক প্রার্থী সালমা আক্তার শিমুলকে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় বেসরকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত ঘোষণা করেছেন।

এ ব্যাপারে প্রয়াত মেয়র সাহাদত হোসেন সুমনের স্ত্রী সালমা আক্তার শিমুল বলেন, আমার স্বামী ছিলেন বঙ্গবন্ধু ও জননেত্রী শেখ হাসিনার একনিষ্ঠ কর্মী। নিজের ও পরিবারের কথা তিনি কখনো ভাবেনি। ভেবেছেন শুধু দলের কথা। স্বামীর আদর্শকে সামনে রেখে আওয়ামীলীগ ও এর সহযোগী সংগঠন আমাকে মেয়র নির্বাচিত করে যে সম্মান দেখিয়েছেন জীবন দিয়ে হলেও তাদের সম্মান রেখে কাজ করবো। সকলের সহযোগিতায় মির্জাপুর পৌরসভাকে একটি আদর্শ ও মডেল পৌরসভা হিসেবে উপহার দেওয়ার চেষ্টা করে যাবো।

টাঙ্গাইল জেলার সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা ও মির্জাপুর পৌরসভার উপ নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার এ এইচ এম কামরুল হাসান বলেন, উপনির্বাচনে একজন প্রার্থী ছাড়া অন্য কোন প্রার্থী না থাকায় সালমাকে বেসরকারিভাবে মেয়র ঘোষণা দিয়ে চূড়ান্ত চিঠি দেওয়া হয়েছে। নির্বাচন কমিশন ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় গেজেট জারি করলেই তিনি শপথ নিতে পারবেন।

এদিকে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় প্রয়াত মেয়র সাহাদত হোসেন সুমনের স্ত্রী পৌর মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় তাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন টাঙ্গাইলে জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা মো. ফজলুর রহমান খান ফারুক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. একাব্বর হোসেন এমপি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর এনায়েত হোসেন মন্টু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক মোস্তাকিম, মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সায়েদুর রহমান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মীর্জা মো. জুবায়ের হোসেন, উপজেলা আওায়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ, পৌরসভার বর্তমান ভারপ্রাপ্ত মেয়র চন্দনা দে, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) মীর্জা শামীমা আক্তার শিফা, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) মো. আজাহারুল ইসলাম সিকদার, বিআরডিবির চেয়ারম্যান মো. জহিরুল ইসলাম জহির, ভাইস চেয়ারম্যান মো. আবিদ হোসেন শান্ত ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাদ্দাম হোসেন।

ইত্তেফাক/এমআরএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত