অনর্থটা ঘটেই গেলো, দায় নিলো না পল্লী বিদ্যুৎ

অনর্থটা ঘটেই গেলো, দায় নিলো না পল্লী বিদ্যুৎ
ছবি: প্রতীকী

পুকুর ঘাটে বিপদজনকভাবে কয়েকদিন ধরে ঝুলছিল পল্লী বিদ্যুতের তার। কয়েক দফা অভিযোগ জানিয়েও কোনো পদক্ষেপ নেয়নি পল্লী বিদ্যুৎ। অবশেষে অনর্থটা ঘটেই গেলো। ওই পুকুরে স্নান করতে গিয়ে বিদ্যুতায়ীত হয়ে প্রাণ গেলো গৃহবধূর। নিহতের পরিবার এ ঘটনায় স্থানীয় পল্লী বিদ্যুতের অবহেলাকে দায়ি করেছেন।

শুক্রবার নবীনগর উপজেলার ইব্রাহিমপুরের সাহা পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত গৃহবধূর নাম লক্ষ্মী রাণী সাহা (৩৫)। তিনি ওই এলাকার শান্তি রঞ্জন সাহার স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানান, শান্তি সাহার বাড়ির পুকুর ঘাটে কয়েকদিন যাবত পল্লী বিদ্যুতের তার বিপদজনকভাবে ঝুলছিল। ওই পরিবারের লোকজন বারবার স্থানীয় পল্লী বিদ্যুতের অফিসে অবহিত করার পরও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। শুক্রবার সকালে ঝড়ে তারটি ছিড়ে পুকুরঘাটে পড়ে থাকে। এই অবস্থায় ওই গৃহবধূ স্নান করতে গেলে পল্লীবিদ্যুতের ছেঁড়া তারে পা লেগে তিনি বিদ্যুতস্পৃষ্ট হন। পরে তাকে নবীনগর সদর হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নবীনগর উপজেলা পল্লী বিদ্যুতের এজিএম এ. কে. এম. বদরুদ্দীন বলেন, আমাদের কাছে কোনো অভিযোগ করা হয়নি। এই ঘটনায় আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

ইত্তেফাক/এসি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত