কুষ্টিয়ায় সম্পত্তি কেনা-বেচা জালিয়াত চক্রের আরও ৪ সদস্য গ্রেফতার

কুষ্টিয়ায় সম্পত্তি কেনা-বেচা জালিয়াত চক্রের আরও ৪ সদস্য গ্রেফতার
সম্পত্তি কেনা-বেচা জালিয়াত চক্রের এক নারীসহ গ্রেফতার চারজন।

কুষ্টিয়ায় ভুয়া এনআইডি কার্ডে অন্যের সম্পত্তি কেনা-বেচা জালিয়াত চক্রের এক নারীসহ আরও চার সদস্যকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। সোমবার রাতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে।

গ্রেফতাররা হলো- খয়বার শেখ, হুর আলী, রঙ্গিলা খাতুন ও হারুণ-অর-রশিদ। এ নিয়ে জালিয়াত চক্রের মোট ১১ জন গ্রেফতার হলো।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, কুষ্টিয়া শহরের ১১০, নবাব সিরাজ-উদ্দৌলা সড়কস্থ জনৈক এম,এম,এ ওয়াদুদের সত্ত্ব দখলীয় মালিকানা সম্পত্তি ভুয়া এনআইডি কার্ডধারী সংঘবদ্ধ একটি চক্র দলিলমুলে অন্যের কাছে বিক্রি করে দেয়। কুষ্টিয়া মডেল থানাধীন কালিশংকরপুর মৌজার অন্তর্গত সম্পত্তির ওয়ারিশসূত্রে প্রকৃত মালিক হচ্ছেন এম,এম,এ ওয়াদুদ, মোকসুদা খাতুন, রিজিয়া খাতুন, বাসেরা খাতুন, সেলিমা কবির ও শামীমা খাতুন। কিন্তু জালিয়াতি চক্র ভুয়া এনআইডি কার্ড তৈরি ও জালিয়াতির আশ্রয়ে জমির মালিক সেজে মজমপুরস্থ মৌজার ২৫৭৫, ২৫৭৬, ২৫৮০, ২৫৮১ দাগের মধ্যে ০.২২ একর জমি বিক্রয় করে দেয়। এছাড়া চক্রটি পরবর্তীতে কুষ্টিয়া মডেল থানাধীন মজমপুর ও চৌড়হাস বাহাদুরখালী মৌজায় একই মালিকের আরও সম্পত্তি জালিয়াতি আশ্রয়ে বেচা-বিক্রি ও আত্মসাতের অপচেষ্টা চালায়। পরবর্তীতে ঘটনাটি জানাজানি হলে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। এতে প্রশাসন নড়ে-চড়ে বসে। এ ঘটনায় সম্পত্তির মালিক এম,এম,এ ওয়াদুদ বাদী হয়ে ১৮ এজাহার নামীয় ও অজ্ঞাত আরও ১২/১৪ জনের নামে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে প্রথম দফায় জালিয়াতির চক্রের মূল হোতাসহ যুবলীগ নেতা আশরাফুজ্জামান সুজনসহ অর্থ বিনিয়োগকারী মহিবুল ও দুই নারীসহ সাতজনকে পুলিশ গ্রেফতার করে। পরবর্তীতে আরও গ্রেফতার করা হয় আরও চারজনকে।

জমির প্রকৃত মালিক এম,এম,এ ওয়াদুদ বলেন,আমি কিংবা আমার ওয়ারিশগনের কেউ জমি বিক্রি করিনি। ভুয়া এনআইডি প্রস্তুত ও সম্পূর্ণ জালিয়াতির আশ্রয়ে একটি চক্র আমাদের জমির একটি অংশ বিক্রি ও আত্মসাতের পাঁয়তারা করছে। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে তিনি দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার সত্যতা স্বীকার করে জানান, জালিয়াতির সাথে জড়িত কেউই রেহাই পাবে না। জিজ্ঞাসাবাদে যাদের সংশ্লিষ্টতা পাবে যাবে তাদের প্রত্যেককে আইনের আওতায় আনা হবে।

ইত্তেফাক/এমআরএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত