জাতীয় মহাসড়কে পার্কিং সুবিধা সম্বলিত আধুনিক বিশ্রামাগার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

জাতীয় মহাসড়কে পার্কিং সুবিধা সম্বলিত আধুনিক বিশ্রামাগার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন
পার্কিং সুবিধা সম্বলিত আধুনিক বিশ্রামাগার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন। ছবি-ইত্তেফাক

টেকসই ও নিরাপদ মহাসড়ক গড়ে তোলার জন্য ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার নিমসার এলাকাসহ দেশের চারটি জাতীয় মহাসড়কের পার্শ্বে পণ্যবাহী গাড়ি চালকদের জন্য পার্কিং সুবিধা সম্বলিত আধুনিক বিশ্রামাগার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। এরই মধ্যে কুমিল্লার নিমসারে নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিশ্রামাগারের উদ্বোধন করেন।

এছাড়া সিরাজগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও মাগুড়া জেলায় আধুনিক সুবিধা সম্বলিত অপর ৩টি বিশ্রামাগার স্থাপন করা হচ্ছে। এ সময় ভিডিও কনফারেন্সের ঢাকা প্রান্তে উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম, সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী কাজী শাহরিয়ার হোসেন এবং কুমিল্লা প্রান্তে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা সড়ক জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. শওকত আলী, সড়ক সার্কেল কুমিল্লার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী রানাপ্রিয় বড়ুয়া, কুমিল্লা সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ড. মোহাম্মদ আহাদ উল্লাহ ও বিভিন্ন কর্মকর্তারা।

কুমিল্লা সওজ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, টেকসই ও নিরাপদ মহাসড়ক গড়ে তোলার জন্য ঢাকা-চট্টগ্রাম জাতীয় মহাসড়কের ৭৮তম কিলোমিটারে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার নিমসার এলাকায় জাতীয় মহাসড়কের পার্শ্বে ৫৬ কোটি ৩৯ লাখ ৪৭ হাজার টাকা ব্যয়ে পণ্যবাহী গাড়ি চালকদের জন্য পার্কিং সুবিধা সম্বলিত একটি বিশ্রামাগার নির্মাণের কাজ উদ্বোধন করা হয়। ন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট ইঞ্জিনিয়ার্স লিঃ, রানা বিল্ডার্স (প্রা:) লিঃ ও হাসান টেকনো বিল্ডার্স লিঃ জেভি নামক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এ কাজ পেয়েছে এবং তাদেরকে ২০২১ সালের ২০ আগস্টের মধ্যে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করতে বলা হয়েছে।

এরই মধ্যে কুমিল্লার নিমসার এবং ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের সিরাজগঞ্জ জেলার পাঁচিলা নামক স্থানে ঠিকাদার নিয়োগ করে নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে। এছাড়া ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মাগুড়ার লক্ষ্মীকান্দর এবং ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জের জগদীশপুর নামক স্থানে বিশ্রামাগার নির্মাণের জন্য ভূমি অধিগ্রহণ ও দরপত্র প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে এবং অচিরেই ঠিকাদার নিয়োগের মাধ্যমে কাজ শুরু করা হবে। দেশের চারটি জাতীয় মহাসড়কের পার্শ্বে পণ্যবাহী গাড়ি চালকদের জন্য পার্কিং সুবিধা সম্বলিত আধুনিক বিশ্রামাগার নির্মাণ কাজের স্থাপনা নির্মাণ ছাড়াও সড়ক বাঁধ, ফুটপাথ, মিডিয়ান, ড্রেন, ট্যাংক নির্মাণ আসবাবপত্র ক্রয়, রোড মার্কিং ও ট্রাফিক সাইন স্থাপন, আলোকসজ্জা ইত্যাদিসহ এ প্রকল্পের মোট প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ২২৬ কোটি ২১ লাখ ৫৯ হাজার টাকা।

কুমিল্লা সড়ক জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. শওকত আলী জানান, পণ্যবাহী গাড়ি চালকদের জন্য মহাসড়কে কোন সুবিধা নেই বললেই চলে। একটানা ৫ ঘণ্টার অধিক সময় গাড়ি চালানোর ফলে চালকদের মাঝে একঘেয়েমিসহ ঘুমঘুমভাব সড়ক নিরাপত্তার ঝুঁকি তৈরি করে। উক্ত ঝুঁকি নিরসনে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পর্যাপ্তসংখ্যক আধুনিক সুবিধা সম্বলিত বিশ্রামাগার তৈরি করা হলে দূরপাল্লার ট্রাক চালকদের বিশ্রাম নেওয়ার সুবিধা হবে। ফলে তাদের রাতযাপনের সমস্যাসহ ভ্রমণজনিত ক্লান্তি ও অবসাদ নিরসন সম্ভব হবে এবং দুর্ঘটনা হ্রাস পাবে। এই বিশ্রামাগার স্থাপনের মাধ্যমে গাড়ি চালকদের মানসিক ও শারীরিক উৎকণ্ঠা দুরীভূত হবে। এ প্রকল্পের আওতায় পণ্যবাহী গাড়ির জন্য পার্কিং এরিয়া, গাড়ি চালকদের বিশ্রাম ও রাতযাপনের সুবিধা, গাড়ি মেরামতের সুবিধা, বিনোদনের জন্য টিভি ও অন্তকক্ষ খেলার সীমিত ব্যবস্থা থাকবে।

ইত্তেফাক/আরকেজি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত