রাজৈরে দফায় দফায় সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত অর্ধাশতাধিক 

রাজৈরে দফায় দফায় সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত অর্ধাশতাধিক 
এএসআইসহ উভয় পক্ষের কমপক্ষে অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। ছবি-ইত্তেফাক

রাজৈরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। এতে এএসআইসহ উভয় পক্ষের কমপক্ষে অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। শনিবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা রাত পর্যন্ত প্রায় দুই ঘণ্টা ব্যাপি উপজেলার মাচ্চর বাজিতপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৭ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ ও ঘটনাস্থল থেকে ৯জনকে গ্রেফতার করেছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এব্যপারে নামীয় ৮৫জন ও অজ্ঞাত ৯০০জনকে আসামি করে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে।

আহতদের রাজৈর, মাদারীপুর ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব শত্রুতার ও এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মাচ্চর বাজিতপুর গ্রামের বিবাদমান দুটি পক্ষ ওবায়দুর রহমান সান্টু খালাশী ও গাউস শেখের মধ্যে শুক্রবার জুম্মা নামাজের পর কথাকাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়।

এক পর্যায়ে গাউস শেখকে মসজিদ থেকে বের মারধর করা হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শনিবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা রাত পর্যন্ত দুই পক্ষের লোকজন দেশিয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দফায় দফায় সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এসময় বিবাদমান দুই পক্ষের সাথে এলাকার আরো কয়েকটি বংশের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপি সংঘর্ষ চলাকালে পুলিশের এএসআই এনায়েত হোসেন, কনস্টেবল আবুল খায়ের, বিপ্লব হোসেন, আবু সবুরসহ কমপক্ষে অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৭রাউন্ড রাবার বুলেট করে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৯জনকে গ্রেফতার করেছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে।

ওসি শেখ সাদিক জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৭রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি চালায়। সংঘর্ষের সময়ে একজন এএসআইসহ ৪ পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছে। পুলিশ বাদী হয়ে এব্যপারে নামীয় ৮৫জন ও আরো অজ্ঞাত ৯০০/১০০০জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছে।

ইত্তেফাক/আরকেজি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত