স্কুলছাত্রী ও শিশু ধর্ষণ

রায়পুরায় ছাত্রলীগ সভাপতি ও নোয়াখালীতে বৃদ্ধের বিরুদ্ধে মামলা

রায়পুরায় ছাত্রলীগ সভাপতি ও নোয়াখালীতে বৃদ্ধের বিরুদ্ধে মামলা
রায়পুরা উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আসাদুল হক চৌধুরী শাকিল। ছবি : সংগৃহীত

নরসিংদীর রায়পুরায় স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা ও নোয়াখালীর সুবর্ণচরে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে এক বৃদ্ধের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

রায়পুরা (নরসিংদী) সংবাদদাতা জানান, দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে রায়পুরা উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আসাদুল হক চৌধুরী শাকিলের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা হয়েছে। ধর্ষণের শিকার ঐ স্কুলছাত্রী বাদী হয়ে শাকিলসহ দুই জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেছেন। এ ঘটনায় রায়পুরার রাজনৈতিক ও সর্বমহলে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে।

অভিযোগে জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে নবীয়াবাদ গ্রাম থেকে ভিকটিমকে তুলে নিয়ে আসে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শাকিল। এরপর উপজেলার রাজিউদ্দিন রাজু অডিটোরিয়ামের একটি কক্ষে ভিকটিমের ওপর পাশবিক নির্যাতনকালে তার চিত্কারে স্থানীয় লোকজন ঐ অডিটোরিয়াম ঘেরাও করে। এ সময় শাকিল কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে ‘৯৯৯’ এ কল করে অবগত করা হলে পুলিশ ভিকটিমকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

স্থানীয়রা জানান, কিছু দিন পরপরই ছাত্রলীগ নেতা শাকিল মেয়েটিকে রাতের বেলায় অডিটোরিয়ামে ডেকে নিয়ে আসতো। মেয়ের পরিবারের লোকজন নিরীহ হওয়ায় প্রভাবশালী ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে সাহস পেত না। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন জানান, এই ঘটনা ধামাচাপা দিতে ও অভিযুক্ত শাকিলকে বাঁচাতে নরসিংদী ও রায়পুরার একটি প্রভাবশালী মহল জোর তদবির চালিয়ে যাচ্ছে।

এ ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আফজাল হোসাইন বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি এবং সে অপরাধী হয়ে থাকলে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

এ ব্যাপারে রায়পুরা থানার সেকেন্ড অফিসার দেব দুলাল বলেন, শাকিলের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এছাড়া ভিকটিমের মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য নরসিংদী সিভিল সার্জন অফিসে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে নোয়াখালী প্রতিনিধি জানান, জেলার সুবর্ণচরে চরজব্বার ইউনিয়নের চর হাসান গ্রামে সাত বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে বৃহস্পতিবার রাতে থানায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় পার্শ্ববর্তী বাড়ির আবদুল হক কাজী (৫৮) নামের একজনকে আসামি করে শিশুটির মা মামলাটি দায়ের করেন।

চরজব্বার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. ইব্রাহিম খলিল মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শিশুটিকে বিস্কুট খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে আসামি বুধবার দুপুরে তার ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। শিশুটিকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। আজ শনিবার নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে তার মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হবে। আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।

ইত্তেফাক/কেকে

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত