নেত্রকোনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি: ইলেক্ট্রিশিয়ানের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ

নেত্রকোনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি: ইলেক্ট্রিশিয়ানের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ
নেত্রকোনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি: ইলেক্ট্রিশিয়ানের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ

নেত্রকোনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি (নেপবিস) অনুমোদিত এক ইলেক্ট্রিশিয়ানের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ করেছেন জেলার খালিয়াজুরী উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামের ভুক্তভোগীরা।

নেপবিস-এর জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) মো. জাকির হোসেন বলেন, ইলক্ট্রিশিয়ান আতাউরের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার বিপক্ষে কঠোর ব্যবস্থা নেব।

পল্লী বিদ্যুতের অনুমোদিত ইলেক্ট্রিশিয়ান নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামের আতাউর মিয়া দীর্ঘদিন ধরে কৃষ্ণপুর এলাকায় বিদ্যুতের ওয়ারিংয়ের কাজ করার পাশাপাশি নেপবিস-এর মিটার নামিয়ে দেওয়া বা বিদ্যুৎ সংযোগ এনে দেওয়ার কাজ করেন ।

একই গ্রামের অভিযোগকারী কয়েস আজাদ আকবারী বলেন, তিনি রুশমিয়া মসলা এন্ড রাইস মিল নামে একটি শিল্প সংযোগ নিতে চাইলে ইলেক্ট্রিশিয়ান আতাউর ওই সংযোগ এনে দেওয়ার কথা বলে তার কাছ থেকে ৮৫ হাজার টাকা নিয়েছেন। পরবর্তীতে সংযোগ দিতে গড়িমসি করায় টাকা ফেরত চাইলে আতাউর তাকে চাঁদাবাজির মামলায় জড়ানোর হুমকি দেন।

ওয়ার্কশপ ব্যবসায়ী অফিকুল মিয়া বলেন, বাণিজ্যিক সংযোগ পাইয়ে দেওয়া বাবদ তাদের কাছ থেকে ১ লক্ষ টাকা করে নিয়েছেন ওই ইলেক্ট্রিশিয়ান আতাউর। তাদের থেকে টাকা নিয়ে জামির মিয়ার বিদ্যুৎ সংযোগ পাইয়ে দিলেও অফিকুলের বিদ্যুৎ সংযোগ না দিয়ে পুরো টাকাই আত্মসাৎ করেছেন আতাউর।

এদিকে, জামির মিয়ার অভিযোগ, ৩৫ হাজার টাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ পাওয়া গেলেও আতাউর তার কাছ থেকে প্রতারণা করে নিয়েছেন ১ লাখ টাকা।

আরও পড়ুন: রংপুরে পুলিশ সদস্যের নেতৃত্বে ছাত্রীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

আবাসিক গ্রাহক নূর হোসেন মিয়া বলেন, তার কাছ থেকে আতাউর ৯০ হাজার টাকা নিয়ে ৯টি আবাসিক সংযোগ দিয়েছে। সংযোগ দেওয়ার পর নূর হোসেন খুঁজ নিয়ে জানতে পারেন ৯ হাজার টাকা হলেই ৯ টি আবাসিক সংযোগ পাওয়া যায়। প্রতারণা করে আতাউর অনেক বেশি টাকা নিয়েছেন বলে আতাউরের শাস্তি চান নূর হোসেন।

অভিযুক্ত ইলেক্ট্রিশিয়ান আতাউর মিয়ার দাবি, তিনি কোন অবৈধ লেনদেন বা প্রতারণার সাথে জড়িত নন। তিনি বলেন, তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উঠেছে সেসব উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও মিথ্যা।

নেপবিস-এর জিএম জাকির হোসেন বলেন, আতাউরের বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রেক্ষিতে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন কয়েক দিনের মধ্যেই পাওয়া যাবে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে আতাউরকে নেপবিস-এর অনুমোদিত ইলেক্ট্রিশিয়ানের দায়িত্ব থেকে অপসারণ করা হবে। তাছাড়া, এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় অন্যান্য পদক্ষেপ নেয়া হবে। এদিকে, বিষয়টি নিয়ে ভুক্তভোগীদের আইনের সহায়তা নেওয়ারও পরামর্শ দেন জিএম।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত