গ্রাম্য সালিশে মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে ও গলাটিপে হত্যার অভিযোগ

গ্রাম্য সালিশে মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে ও গলাটিপে হত্যার অভিযোগ
নিহত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফ খান। ছবি: দৈনিক ইত্তেফাক

টাঙ্গাইলের বাসাইলে মাছ ধরার ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রাম্য সালিশে এক মুক্তিযোদ্ধাকে গলাটিপে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার হাবলা ইউনিয়নের মটরা গ্রামের খানপাড়ায় এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফ খান (৭১) পাড়ায় এলাকার মৃত নওজেশ আলী খানের ছেলে।

পুলিশ ও নিহতের ছোট ভাই মো. করিম খান জানায়, সম্প্রতি লতিফ খানের পুকুরের পাশে আবু খানের এক আত্মীয়ের পুকুর থেকে আবু খান তার ছেলেদের নিয়ে মাছ ধরছিলো। এ সময় করিম খান তাদের পুকুরের মাছ ধরার জাল এবং অন্যান্য উপকরণ ফেলতে নিষেধ করেন। বিষয়টি নিয়ে পরবর্তীতে উভয় পরিবারের মধ্যে বাকবিতণ্ডা সৃষ্টি হয়। এ ঘটনা সুরাহার জন্য স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহজাহান খান গত ৩০ সেপ্টেম্বরও শুক্রবার বেলা তিনটার দিকে তার বাড়িতে আবু খান এবং মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফ খানের পরিবারের সদস্যদের একত্র করে মীমাংসার জন্য একটি গ্রাম্য শালিসের আয়োজন করে। শালিসে প্রথম-পক্ষ আবু খান তাদের কথা উপস্থাপন শেষে বৃদ্ধ মুক্তিযোদ্ধা লতিফ খান প্রকৃতির ডাকে ঘরের বাইরে গেলে আবু খান এবং তার ছেলেদের সাথে বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে। এসময় বৃদ্ধ মুক্তিযোদ্ধাকে কিল-ঘুসি দিয়ে মাটিতে ফেলে গলাটিপে ধরা হয় বলে জানান তার ভাই করিম খান।

বাহিরে চিৎকার শুনে করিম খানসহ অন্যরা লতিফ খানকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হাবলা ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য শাহজাহান খান বলেন, সামান্য ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষ উত্তেজিত হয়ে পড়লে উভয়পক্ষকে নিয়ে সালিশ বসা হয়। সালিশের এক পর্যায়ে ঘরের বাইরে গিয়ে দুই পক্ষের মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি হয় এবং তারা সংঘর্ষে জড়ায়। ওই মুক্তিযোদ্ধা বেশি আহত হলে তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে তার মৃত্যু হয়।

বাসাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুনুর রশিদ বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত্যুর ঘটনায় একটি হত্যা মামলা দায়ের (৯/৩০-১০) করা হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য লিটন (৪০) এবং উজ্জল (৩৮) নামের দুই ব্যক্তিকে থানায় আনা হয়েছে।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত