ভুয়া মোবাইল কোর্ট সাজিয়ে অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় থানার ওসিকে বদলি

ভুয়া মোবাইল কোর্ট সাজিয়ে অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় থানার ওসিকে বদলি
ওসি হাবিবুর রহমান।ছবি: ইত্তেফাক

রংপুরে ভুয়া মোবাইল কোর্ট সাজিয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে শাস্তিমূলক বদলি করা হয়েছে বদরগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমানকে। শুক্রবার এ আদেশ জারি করা হয়।

রংপুর জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার জানান, তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগের সত্যতা মিলেছে। শাস্তিমূলক বদলি হিসেবে তাকে কুড়িগ্রামে দেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, একটি ভুয়া মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ছিলো ওসি হাবিবুরের বিরুদ্ধে।

অভিযোগে বলা হয়, চলতি বছর ১৪ এপ্রিল পাঠানের হাট এলাকার রাস্তা থেকে ওই কৃষকের একটি মাটি ভর্তি ট্রলি বদরগঞ্জ থানার এসআই হাবিব আটক করে থানায় নিয়ে যায়। ২৭ দিন পর তাকে জানানো হয় মোবাইল কোর্টে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ১১ মে ওসির কাছে ৫০ হাজার টাকা জমা দিয়ে তিনি ট্রলিটি ফেরত নেন। কিন্তু কোন রশিদ না দেওয়ায় সন্দেহ হওয়ায় ইউএনও অফিসে খোঁজ নিয়ে ওই কৃষক জানতে পারেন তার নামে মোবাইল কোর্টে কোন মামলা হয়নি।

আরও পড়ুন: করোনায় কুমুদিনী উইমেন্স মেডিক্যাল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষের মৃত্যু

মূলত গত ১ মে তারিখে বদরগঞ্জের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শরিফুল ইসলাম ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে বদরগঞ্জ থানার মামলা নম্বর ৫০/২০২০ এর অধীনে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জের মাগুড়া এলাকা থেকে ভেজাল মধু বিক্রি করতে আসা আব্দুস সালাম নামের এক ব্যক্তিকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

বদরগঞ্জ থানার জিডির ফাইলে দেখা যায় ১০ মে ওসি কৃষক ময়নুল হাকের নামে একটি জিডি করেন, যেখানে মামলা নং এর পরে ফাঁকা দেখা যায় এবং বলা হয় বালু ব্যবস্থাপনা আইনের ধারায় ওই কৃষকের ট্রলির জন্য ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে মোবাইল কোর্ট।

পরবর্তীতে ওসি ওই ফাঁকা জায়গায় মামলা নং ৫০/২০ বসিয়ে দেন এবং ওই কৃষকের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন। এ ঘটনাটি নজরে আসা মাত্রই বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮ টায় রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি দেবদাস ভট্রাচার্য ওসি হাবিবুর রহমান হাওলাদারকে স্ট্যান্ড রিলিজ করে কুড়িগ্রাম জেলায় বদলি করেন।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত