টাঙ্গাইলে চতুর্থ শ্রেণির দুই মাদ্রাসার ছাত্রকে দুই শিক্ষকের বলাৎকার

টাঙ্গাইলে চতুর্থ শ্রেণির দুই মাদ্রাসার ছাত্রকে দুই শিক্ষকের বলাৎকার
ঘাটাইলে মাদ্রাসা শিক্ষার্থী বলাৎকারে গ্রেফতার একই মাদ্রাসার দুইজন শিক্ষক। ছবি: ইত্তেফাক

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে চতুর্থ শ্রেণির দুই মাদ্রাসার শিক্ষার্থী বলাৎকারের শিকার হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল পৌর এলাকার পশ্চিমপাড়া শ্যামলী (গরুর হাট) এলাকার আল এহসান নূরানী মাদ্রাসার হেফজ খানার দুই শিশুকে বলাৎকার করা হয়। অভিযোগের পর দুই মাদরাসা শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ।

আটক দুই মাদরাসা শিক্ষক গোপালপুর উপজেলার শরিয়তপুর গ্রামের হেকম আলীর ছেলে রমিজুল (২২) ও ভুঞাপুর উপজেলার নিকরাইল গ্রামের মৃত তারা মিয়ার ছেলে খায়রুল (২২)। তারা দুজনেই ওই মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করতেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শিশু দুটির বয়স ১১ বছর। বলাৎকার হওয়ার পর শিশু দুটি ঘটনাটি তাদের বাবা-মাকে জানায়। পরে পুলিশে জানানো হলে দুই শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী একজন শিক্ষার্থীর বাবা বাদি হয়ে ঘাটাইল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। স্থানীয়রা আরও জানান, গ্রেফতার দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এর আগেও শিশু বলাৎকারের অভিযোগ আছে।

আরও পড়ুন: স্বামী ওপর স্ত্রীর এসিড নিক্ষেপ: হাসপাতাল বলছে এসিড, পুলিশের আগ্রহ ‘অন্যকিছু’তে

বলাৎকারের শিকার এক ছাত্রের অভিভাবক জানান, ঘটনার শিকার আমার ছেলে ভয়ে মাদরাসা থেকে পালিয়ে নানীর বাসায় আশ্রয় নেয়। খবর পেয়ে আমি ও স্ত্রী সেখানে যাই। কারণ জানতে চাইলে ছেলে বলে, আমি আর মাদরাসায় যাবো না। হুজুর আমার সাথে খারাপ কাজ করেছে। আমাকে মাদরাসায় পাঠালে ছাদ থেকে লাফ দিয়ে মরে যাবো।

এ বিষয়ে ঘাটাইল থানার পুলিশের উপ পরিদর্শক (এসআই) মো. মতিউর রহমান বলেন, বলাৎকারের সঙ্গে জড়িত দুই শিক্ষককে গ্রেফতার করে টাঙ্গাইল জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/এসি

ঘটনা পরিক্রমা : নারী ও শিশু নির্যাতন

পরবর্তী
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x