বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে রাজশাহী জেলা যুবলীগের বিক্ষোভ

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে রাজশাহী জেলা যুবলীগের বিক্ষোভ
বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে রাজশাহী জেলা যুবলীগের বিক্ষোভ

কুষ্টিয়ার পাঁচরাস্তার মোড়ে বঙ্গবন্ধুর নির্মাণাধীন ভাস্কর্য ভেঙ্গে ফেলার প্রতিবাদে রাজশাহী জেলা যুবলীগ নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। শনিবার সন্ধ্যায় নগরীর লক্ষ্মীপুর মোড়ের বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের পাদদেশ থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভ মিছিলটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় একই স্থানে এসে এক সমাবেশে মিলিত হয়।

রাজশাহী জেলা যুবলীগের সভাপতি আবু সালেহ’র সভাপতিত্ব ও জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলী আজম সেন্টুর সঞ্চালনায় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহা. আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, স্বাধীনতার মাসে এই মৌলবাদীরা আবারও ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। ভুল ফতোয়া দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে উস্কানি দিচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ম, শেখ হাসিনা কওমি মাদ্রাসার স্বীকৃতি দিয়েছেন। আলাদা বোর্ড গঠন করে দিয়ে সার্টিফিকেটের মর্যাদা দিয়েছেন, ৫০০ মডেল মসজিদ নির্মাণ করছেন। মাদ্রাসার সুপারেন্টড পদকে অধ্যক্ষ পদে উন্নীত করেছেন। সারা দেশের মসজিদের ইমামদের বিগত ঈদে সম্মানী দিয়েছে। তারপরও এই মৌলবাদীরা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে উল্টাপাল্টা বক্তব্য দিয়ে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি পাঁয়তারা করছে।

তিনি বলেন, মৌলবাদের এই সব বক্তব্যের পর কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙ্গেছে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা এখন আর বসে থাকবে না। এই দৃষ্টটার জন্য সমুচিত জবাব দেওয়া হবে। আর যদি একটি ভাস্কর্যে হাত দেওয়া হয়, তবে আমরাও তাদের প্রতিরোধ করবো। ঘরে বসে মৌলবাদীদের সকল কিছু নীরবে মেনে নিব না।

ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতিবাদ

এদিকে কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্মাণাধীন ভাস্কর্য ভাংচুরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি রাজশাহী মহানগর কমিটি। শনিবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু ও সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙাকে পৈশাচিক ঘটনা উল্লেখ করে তারা বলেন, মহান স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যই যখন এদেশে নিরাপদ নয় তখন মৌলবাদীদের দৌরাত্ম কতদূর পৌঁছেছে তা জানার কিছু বাকী নেই। তারা সেদিন লালনের ভাস্কর্য ভেঙেছে, আজ বঙ্গবন্ধুর ভাঙলো, কাল শহীদ মিনার ভাঙবে। তাই এখনই যদি তাদের বিষদাঁত শক্ত হাতে ভেঙে ফেলা না যায়- তবে একদিন তারা সোনার বাংলাদেশটাকেই ভেঙে তছনছ করে ফেলবে।

মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টি মনে করে, উগ্র মৌলবাদীদের সাথে কোনরকম আঁতাত বাংলাদেশের জন্য ক্ষতিকর। বাংলাদেশকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় একটি অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তুলতে হলে সাম্প্রদায়িক শক্তির মাথা চাড়া দেয়ার সকল পথ বন্ধ করা প্রয়োজন। এ সময় মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িত সকলকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানান।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x