কাপাসিয়ায় ৬ মাসের শিশুকে এসিডে ঝলসে দিলো প্রতিবেশী

কাপাসিয়ায় ৬ মাসের শিশুকে এসিডে ঝলসে দিলো প্রতিবেশী
প্রতীকী ছবি। ছবি: সংগৃহীত

গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার রায়েদ ইউনিয়নের বড়হড় গ্রামে আফিয়া আক্তার মীম নামের ৬ মাস বয়সী এক নিষ্পাপ শিশুকে আদর করার কথা বলে কোলে নিয়ে শরীরে এসিড দিয়ে ঝলসে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। মর্মান্তিক এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে প্রতিবেশী এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ।

শিশু আফিয়া আক্তার মীম উপজেলার রায়েদ ইউনিয়নের বড়হর গ্রামের মুদি ব্যবসায়ী ইমরানের মেয়ে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আটককৃত প্রতিবেশী শামসুন্নাহার (৪০) একই গ্রামের মঞ্জুরুলের স্ত্রী।

কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আলম চাঁদ জানান, গত শুক্রবার বিকেলে আফিয়া আক্তার মীমকে কোলে নিয়ে তার দাদী ও স্বজনরা সাথে বাড়ির আঙ্গিনায় রোদ পোহাচ্ছিল। এমন সময় প্রতিবেশী চাচী শামসুন্নাহার সেখানে এসে আদর করার ছলে মীমকে কোলে নিয়ে পাশের বাড়ি চলে যায়। কিছুক্ষণ পর মীমের তীব্র চিৎকার শুনে সেখানে ছুটে যায় মীমের স্বজনরা। মীমের কি হয়েছে জানতে চাইলে অসংলগ্ন জবাব দেয় শামসুন্নাহার।

আরও পড়ুনঃ সাভারে গাড়ি চাপায় প্রকৌশলীর মৃত্যু

এসময় মীমের শরীর থেকে পোড়া গন্ধ বের হতে থাকে এবং কান ও লজ্জাস্থানসহ শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ ঝলসে যেতে দেখা যায়। পরে তার স্বজনরা তাকে দ্রুত পার্শ্ববর্তী আমরাইদ বাজারে একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক মীমের শরীরে দাহ্য পদার্থ ঢেলে দেয়ার কথা জানান এবং দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাবার পরামর্শ দেন।

পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে ঢাকায় নিয়ে যাবার পরামর্শ দেন। পরে তার স্বজনরা মীমকে ঢাকার বারডেমে ভর্তি করেন।

তার মতে, এ ঘটনা জড়িত একজনকে আটক করা হয়েছে। স্বজনদের লিখিত অভিযোগ দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। অভিযোগ পেলে মামলা দায়ের করা হবে।

মীমের চাচা আরমান জানান, ঢাকায় চিকিৎসা শেষে মীমকে বাড়ি নিয়ে আসা হয়েছে। তবে, মীমের ক্ষতস্থান এখনো শুকায়নি। তিনি এ বিষয়ে সঠিক বিচার দাবি করেছেন।

ইত্তেফাক/এমএএম

Nogod
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত