ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২ বৈশাখ ১৪২৬
৩৭ °সে

মুরগি চুরির অভিযোগ, কিশোরকে বেঁধে নির্যাতন

মুরগি চুরির অভিযোগ, কিশোরকে বেঁধে নির্যাতন
ভুক্তভোগী রুবেল

চরফ্যাশনের হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নে মুরগি চুরির অপবাদে রুবেল (১৪) নামের এক কিশোরকে স্থানীয় ইউপি সদস্য আমজাদের নেতৃত্বে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত ১৫ নভেম্বর নির্মম এই ঘটনা ঘটলেও নির্যাতনকারীদের হুমকী আর আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারণে ভুক্তভোগীর পরিবার মামলা করতে পারেনি। নির্যাতনের নির্মমদৃশ্য ফেজবুকে ভাইরাল হওয়ায় ঘটনার দুই মাসের বেশি সময় পর পুলিশ ভুক্তভোগীর মাকে ডেকে নিয়ে নির্যাতনকারী হাজারীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার আমজাদ হোসেনসহ ৬ জনকে আসামি করে গত শনিবার শশীভূষণ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল রবিবার এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত কোন আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

ভুক্তভোগী রুবেলের মা বিলকিছ বেগম জানান, রুবেল জেলে নৌকার বাবুর্চি। ঘটনার আগের দিন বনভোজন খাওয়ার জন্য রুবেলসহ বেশ কয়েকজন মুরগি কিনে আনেন। এই মুরগি চুরি করে আনা হয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন স্থানীয় মেম্বার। ১৫ নভেম্বর, ঘটনার দিন মুরগি চুরির অপবাদে স্থানীয় মেম্বার বাড়ি থেকে রুবেলকে ডেকে নিয়ে ৭নং ওয়ার্ডের হাজারীগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে গ্রামবাসীর সামনে মধ্যযুগীয় কায়দায় মারধর করে। রুবেলকে বাঁ পায়ের সাথে ডানহাত এবং ডান পায়ের সাথে বাঁ পা বেঁধে বদ্ধ হাত-পায়ের মাঝখানে মোটা লাকড়ির চলা ঢুকিয়ে পাছায় পেটানো হয়।

একদিকে পেটানো হয়,অন্যদিকে টাকার জন্য রুবেলের মায়ের কাছে বার্তা পাঠানো হয়। রুবেলের মা স্থানীয় চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদারের কাছে ধর্না দিলে তিনি মেম্বারকে ৫ হাজার টাকা দিয়ে ছেলেকে ছাড়িয়ে নেয়ার কথা বলেন। নিরুপায় হয়ে দরিদ্র বিপদগ্রস্ত মা বিলকিছ বেগম নাকফুল আর গলার গহনা বন্ধক রেখে ৫ হাজার টাকা এনে মেম্বার আমাজাদ হোসেনকে দিয়ে ছেলেকে ছাড়িয়ে নেন। ঘটনার পর অর্থাভাবে ছেলের চিকিৎসা যেমন করাতে পারেননি, তেমনি অর্থাভাবের পাশাপাশি মেম্বারের হুমকীর কারণে মামলাও করতে যাননি। কিন্ত ঘটনাটি ফেজবুকে ভাইরাল হলে শনিবার শশীভূষণ থানা পুলিশ ভিক্টিমের মাকে থানায় ডেকে এনে মেম্বারসহ ৬ জনকে আসামি করে মামলা নেন। ঘটনার পর মেম্বারসহ অপরাপর আসামিরা পালিয়ে গেছেন বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

অভিযোগ প্রসঙ্গে অভিযুক্ত মেম্বার জানান, চেয়ারম্যানের নির্দেশে আমি মুরগি চুরির কঠিন বিচার করেছি। বিচার করতে গেলে একটু আধটু মারধর করতেই হয়।

চেয়ারম্যান সেলিম হাওলাদার জানান, তিনি কিছুই জানতেন না। নির্যাতনের পর রুবেলের মা তাকে বিষয়টি জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: হাসপাতাল চত্বরের গাছতলায় সন্তান জন্ম, জবাব দিতে নার্সকে আল্টিমেটাম

শশীভূষণ থানার উপ-পরিদর্শক মামালার তদন্ত কর্মকর্তা পবিত্র কুমার জানান, এই ঘটানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ইত্তেফাক/আরকেজি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৫ এপ্রিল, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন