নোয়াখালীতে ফের অর্ধনগ্ন করে নারী নির্যাতন, গ্রেফতার ৫

নোয়াখালীতে ফের অর্ধনগ্ন করে নারী নির্যাতন, গ্রেফতার ৫
হাতিয়ায় পল্লী চিকিৎসক ও নারী নির্যাতন মামলায় ৫ আসামিকে গ্রেফতার। ছবিঃ ইত্তেফাক

নোয়াখালীর হাতিয়ার চানন্দী ইউনিয়নে অনৈতিক কাজের অপবাদ দিয়ে ফের এক পল্লী চিকিৎসক ও এক নারীকে আটক করে মারধর ও অর্ধনগ্ন করে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয় স্থানীয় বখাটেরা। নির্যাতনের শিকার পল্লী চিকিৎসক বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে চানন্দি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা থেকে গতকাল রবিবার(১৮ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে এজাহারভুক্ত ৫ আসামিকে গ্রেফতার করে

গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন, চানন্দি ইউনিয়নের মোল্লা গ্রামের আবুল হোসেন মেইকারের ছেলে মো. জিয়া ওরফে জিহাদ (৩০), আদর্শ গ্রামের খবির উদ্দিনের ছেলে মো. ফারুক (৩০), নবীর উদ্দিন ওরফে হোন্ডা নবীর (৩২), আলমগীর হোসেন (৪০), আবু তাহের (২৭)।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে নির্যাতনের ঘটনায় মামলা দায়ের ও পাঁচজনকে গ্রেফতার করার বিষয়টি নিশ্চিত করেন হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের। ওসি জানান, নারী নির্যাতনের বিষয়টি পুলিশের নজরে আসলে জেলা পুলিশ সুপার নিজেই রবিবার বিকেলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এরপর পুলিশ সুপারের নির্দেশে নির্যাতনের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়। রাতেই অভিযান চালিয়ে চানন্দি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা থেকে মামলার পাঁচজন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার আসামিদের হাতিয়ার আদালতে সোপর্দ করা হবে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

পুলিশের সূত্রে জানা যায়, গত ১ জানুয়ারি নোয়াখালীর হাতিয়ার চানন্দী ইউনিয়নে এক এলাকার কিছু বখাটে যুবক অনৈতিক কাজের অপবাদ দিয়ে স্থানীয় ওই পল্লী চিকিৎসক ও একজন গৃহবধূকে মারধর করে। পরে তাদেরকে একটি গাছের সঙ্গে বেঁধেও মারধর করে। এক পর্যায়ে নির্যাতনের ঘটনাটি তারা মোবাইলে ধারণ করে এবং তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া হয়।

ইত্তেফাক/ এনএ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x