অনুদানের জন্য শিক্ষার্থীদের আবেদনের হিড়িক!

অনুদানের জন্য শিক্ষার্থীদের আবেদনের হিড়িক!
ছবি: সংগৃহীত

ফুলবাড়িয়ায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা গণহারে অনুদানের জন্য আবেদন করছে। এতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ইউনিয়ন পরিষদ ও কম্পিউটার দোকানগুলোতে ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। এদিকে এই আবেদনের জন্য জন্মনিবন্ধন নিতে ফি বাবদ শিক্ষার্থীকে গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা। জন্মনিবন্ধনের ফি বেশি নেওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের এক উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় গত ১৮ জানুয়ারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের অনুদান দেওয়ার জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি করে। বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে দুরারোগ্য ব্যাধি, দৈব-দুর্ঘটনা এবং শিক্ষা গ্রহণ কাজে ব্যয়ের জন্য আবেদন করতে বলা হয়। তবে এ বিশেষ অনুদান দেওয়ার ক্ষেত্রে দুস্থ, প্রতিবন্ধী, অসহায়, রোগগ্রস্ত, মেধাবী এবং অনগ্রসর সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ্য করা হয়। কিন্তু উপজেলার স্কুল-কলেজের সব শিক্ষার্থীই আবেদন করছে। সরকারি ফুলবাড়ীয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষক জানান, সকলেই প্রত্যয়নের জন্য ভিড় করছে। প্রত্যয়ন না দেওয়ার কথা বললে শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা মন খারাপ করে। তাই বাধ্য হয়ে সকলকেই প্রত্যয়নপত্র দেওয়া হচ্ছে।

চেয়ারম্যান ফজলুল হক মাখন নাওগাঁও ইউনিয়নের কেশরগঞ্জ বাজারে তার নিজ ঘরে ১০টি কম্পিউটার বসিয়ে সাত দিন ধরে গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করছেন। তাতেও তিনি ভিড় সামাল দিতে পারছেন না বলে জানান। চেয়ারম্যান ফজলুল হক মাখন জানান, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা ফাতেমা খাতুন জন্মনিবন্ধনে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় কাজ থেকে বিরত রাখা হয়েছে। সোমবারের মধ্যে তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে তার স্থলে নতুন লোক নিয়োগ দেওয়া হবে।

উপজেলার কৈয়ারচালা গ্রামের শিক্ষার্থী সাব্বির জানান, তার ছোটভাই-বোনসহ তিন জনের অনলাইন জন্মনিবন্ধনের জন্য ৭০০ টাকা দিয়েছেন। অভিভাবক চাঁন মিয়া বলেন, এক মাথা থেকে আরেক মাথা পর্যন্ত দৌড়াদৌড়ি করে পকেট থেকে টাকা যাচ্ছে। ছেলের আবদার ফেলতেও পারি না।

ফুলবাড়ীয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ জানান, উপজেলায় ১১টি কলেজ, ৭৪টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ৫২টি মাদ্রাসা রয়েছে। সব শিক্ষার্থী এ অনুদানের টাকা পাবে না। একটি প্রতিষ্ঠান থেকে শতকরা ৪০ জন এ অনুদানের আওতায় আসবে।

ইত্তেফাক/এসসিএস

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x