হিলি দিয়ে আজ থেকে ভারতে আটকেপড়া বাংলাদেশিরা ফিরতে পারবেন

হিলি দিয়ে আজ থেকে ভারতে আটকেপড়া বাংলাদেশিরা ফিরতে পারবেন
ছবি: ইত্তেফাক

ভারতে চিকিৎসা ও অন্যান্য প্রয়োজনে গিয়ে আটকেপড়া বাংলাদেশি পাসপোর্টযাত্রীরা অবশেষে আজ রবিবার থেকে দিনাজপুরের হিলি চেকপোস্ট দিয়ে দেশে ফিরতে পারবেন। অবশ্য তাদের পাসপোর্টে ভিসা থাকার পাশাপাশি কলকাতায় বাংলাদেশের উপ-হাইকমিশন থেকে এনওসি (নো অবজেকশন সার্টিফিকেট বা অনাপত্তিপত্র) থাকতে হবে। এরপরেই তারা দেশে প্রবেশ করতে পারবেন।

এরপর ইমিগ্রেশন, কাস্টমস এবং স্বাস্থ্য বিভাগের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদের স্থানীয় দুইটি আবাসিক হোটেলে ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে। সেখানে তারা নিজ খরচে অবস্থান করবেন। এছাড়া করোনা শনাক্তদেরকে প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রাখা হবে।

এদিকে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, আজ রবিবার থেকে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ৩০ মে পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। রাজ্য সরকার এই লকডাউন ঘোষণা করেন। লকডাউনের কারণে সেখানে ট্রেনসহ সব ধরণের যাত্রীবাহী পরিবহন বন্ধ থাকবে। একারণে হয়ত ভারতের আটকাপড়া বাংলাদেশি পাসপোর্টযাত্রীরা ফিরতে দুর্ভোগে পড়তে পারেন।

হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্টের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেকেন্দার আলী জানান, করোনার কারণে গত বছরের মার্চ থেকে হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে পাসপোর্টযাত্রী পারাপার পুরোপুরি বন্ধ আছে। গত ১২ মার্চ সরকার ভারতে অবস্থান করা বাংলাদেশি পাসপোর্টযাত্রীদের দুর্ভোগ লাঘবে দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তারই আলোকে রবিবার থেকে ভারতে অবস্থান করা বাংলাদেশি পাসপোর্টযাত্রী কলকাতায় বাংলাদেশের উপ-হাইকমিশনের এনওসি নিয়ে হিলি চেকপোস্ট দিয়ে দেশে আসতে পারবেন। এসময় তাদের ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সম্পন্ন করে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হবে। এদের মধ্যে অনেকে চিকিৎসা ও অন্যান্য প্রয়োজনে ভারতে গিয়ে আটকা পড়েন।

তিনি আরও জানান, শুধুমাত্র ভারতে অবস্থান করা বাংলাদেশি পাসপোর্টযাত্রীরা দেশে ফিরতে পারবেন। কিন্তু বাংলাদেশি কোন পাসপোর্টযাত্রী বা বাংলাদেশে অবস্থান করা ভারতীয় কোন পাসপোর্টযাত্রী ভারতে প্রবেশ করতে পারবেন না।

গত ১২ মে সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, ভারতে অবস্থানরত বাংলাদেশিরা বেনাপোল, আখাউড়া ও বুড়িমারী স্থলবন্দর ছাড়াও আরও তিনটি স্থলবন্দর দিয়ে দেশে প্রবেশ করতে পারবেন। এই বন্দর তিনটি হচ্ছে, দিনাজপুরের হিলি, চুয়াডাঙ্গার দর্শনা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনাসমজিদ স্থলবন্দর। এই তিন বন্দর দিয়ে প্রবেশের সিদ্ধান্ত কাল আজ রবিবার থেকে কার্যকর হবে।

এদিকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে। ভারতীয় ট্রাকগুলো আমদানিকৃত পণ্য নিয়ে বন্দরে প্রবেশের পর জীবাণুনাশক স্প্রে করা হচ্ছে। সেই সাথে ট্রাকের চালককেও স্যানিটাইজ করা হচ্ছে। চালকরা যাতে বন্দরের বাইরে যেতে না পারেন সেজন্য পানামা পোর্ট কর্তৃপক্ষ নজরদারি বাড়িয়েছেন। প্রতিদিন এই বন্দর দিয়ে দুই শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক প্রবেশ করছে।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x