হাতিয়ায় ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা

হাতিয়ায় ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা
রবীন্দ্র চন্দ্র দাস। ছবি: ইত্তেফাক

নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার চরইশ্বর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার রবীন্দ্র চন্দ্র দাসকে (৪৮) কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার দিবাগত রাত ২টার দিকে খাসের হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন প্রধান সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম আজাদের লোকেরা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে দাবি করেছেন নিহতের স্বজনেরা।

নিহত রবীন্দ্রদাস ওই ওয়ার্ডের পণ্ডিত গ্রামের সতীশ চন্দ্র দাসের ছেলে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের একজন সদস্য। তিনি বর্তমান ইউপি সদস্য ও আগামী ২১ জুনের নির্বাচনে একজন ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী।

হাতিয়া উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আল আমিন ইত্তেফাককে জানান, রাত ২টার দিকে রবীন্দ্র মেম্বারসহ একই মোটরসাইকেলে করে সে বাংলাবাজার থেকে উপজেলা সদর ওছখালীর দিকে আসছিলো। খাসের হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে আসলে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম আজাদের ছেলে অমিও, ভাতিজা সোহেল, নাজিম ও রহিম ডাকাতসহ ৬০-৭০ জন লোক তাদের গতিরোধ করে। এ সময় সে (আলআমিন) দৌড়ে পালিয়ে যেতে পারলেও তারা গুলি ছুড়লে গুলিবিদ্ধ হয়ে রবীন্দ্র মাটিতে পড়ে যায়। পরে তারা তাকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে রাস্তার পাশে ফেলে যায়। রাতে টহল পুলিশ রাস্তার পাশে রবীন্দ্র মেম্বারকে পড়ে থাকতে দেখে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

চরইশ্বর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রাশেদ উদ্দিন জানান, রবীন্দ্র মেম্বারের নেতৃত্বে ১২জন ইউপি সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম আজাদের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রদান করলে চেয়ারম্যানের সাথে তার বিরোধ প্রকাশ্যে রূপ নেয়।

নিজের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম আজাদ বলেন, ‘আমি বর্তমানে ঢাকা রয়েছি। এ হত্যাকাণ্ডের সাথে আমি, আমার পরিবার ও দলের কোনো লোক জড়িত নয়।’

এ ব্যাপারে হাতিয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের জানান, মেম্বার রবীন্দ্র চন্দ্র দাসসহ শ্রমিক লীগের সভাপতি আল আমিন রাতে ওছখালী আসার পথে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x