চট্টগ্রামে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যু

চট্টগ্রামে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যু
ছবি: প্রতীকী

চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন স্থানে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জন নিহত ও ২০ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে ভয়াবহতম দুর্ঘটনা ঘটে নগরীর কর্ণফুলী থানার মইজ্জারটেক এলাকায়। শুক্রবার (১৮ জুন) বিকেল সাড়ে তিনটায় বাস ও মিনিবাসের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষে দুইজন নিহত ও ১৭ জন আহত হয়। আহতদের চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৭ থেকে ৮ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে।

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই শীলব্রত বড়ুয়া সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ইত্তেফাককে জানান, মইজ্জারটেকে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ১৯ জনকে চমেক হাসপাতালে আনার পর চিকিৎসক দু’জনের মৃত্যু নিশ্চিত করেছেন। বাকিদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ৭ থেকে ৮ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। নিহতদের মধ্যে নুরুল আফসার নামে একজনের পরিচয় জানা গেছে। এছাড়া আনুমানিক ২০ বছর বয়সের এক যুবক নিহত হয়েছেন।

কর্ণফুলী থানার ওসি (তদন্ত) ফেরদৌস ইত্তেফাককে বলেন, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে ইউটার্ন নিতে থাকা একটি অটোরিকশাকে বাঁচাতে গিয়ে ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় ২৫ থেকে ৩০ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে অন্তত ৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে পাঠিয়েছেন। দুর্ঘটনায় দু’টি বাসের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। মিনিবাসটি দুমড়ে মুচড়ে গেছে। আহতদের বের করার জন্য মিনিবাসের কিছু অংশ কাটতে হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে মইজ্জারটেকের ফসিল ফিলিং স্টেশন থেকে গ্যাস নিয়ে একটি অটোরিকশা মহাসড়কের এক পাশ থেকে অন্য পাশে ইউটার্ন নিচ্ছিল। তখন চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারগামী বিআরটিসির একটি বাস সেখানে এসে পড়ে। অটোরিকশাকে বাঁচাতে গিয়ে দ্রুতগামী বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার অপর পাশে চলে যায়। এসময় পটিয়া থেকে চট্টগ্রাম শহরের দিকে আসতে থাকা নিউ কর্ণফুলি এন্টারপ্রাইজ নামে একটি মিনিবাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

চট্টগ্রামে বাস-মিনিবাস মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ২৫

শুক্রবার দুপুরে নগরীর ইপিজেড থানার স্টিলমিল বাজার খালপাড়ে বাসের চাপায় রিকশা আরোহী নারী ও শিশুসহ একজন পথচারী নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- আরফা বেগম, তার ভাতিজি আয়শা আকতার মিম ও পথচারী রেজাউল করিম। পুলিশ চালকসহ বাসটিকে আটক করেছে। এদিন সকালে নগরীর পাহাড়তলী থানার রাণী রাসমনি ঘাট এলাকায় অজ্ঞাত গাড়ির ধাক্কায় গোপাল দাশ নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনি দক্ষিণ কাট্টলী এলাকার হরিলাল দাশের ছেলে।

এর আগে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে নগরীর আক্তারুজ্জামান ফ্লাইওভারের জিইসি মোড় অংশে দুর্ঘটনায় মোটর সাইকেল আরোহী এক যুবক মারা যান। তার নাম তামিম। তিনি মোটর সাইকেল চালিয়ে লালখান বাজার থেকে হামজারবাগে নিজ বাসায় ফিরছিলেন। জিইসি মোড়ে পৌঁছানোর তার বাইকের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়ক বিভাজকের সাথে ধাক্কা লাগে। আশংকাজনক অবস্থায় চমেক হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ইত্তেফাক/এসজেড

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x