খুলনার ২১ ইউনিয়নে নৌকা ও ৮টিতে বিদ্রোহী প্রার্থী চেয়ারম্যান নির্বাচিত

খুলনার ২১ ইউনিয়নে নৌকা ও ৮টিতে বিদ্রোহী প্রার্থী চেয়ারম্যান নির্বাচিত
ছবি: সংগৃহীত

খুলনার পাঁচ উপজেলার ৩৪টি ইউনিয়নের মধ্যে ২১টিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। এছাড়া ৮টিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও চারটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। অপরদিকে একটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ফলাফল স্থগিত রয়েছে।

স্থানীয় ও রিটার্নিং কর্মকর্তা সূত্রে জানা গেছে, কয়রা উপজেলার আমাদি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের জিয়াউর রহমান, বাগালী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মো. আবদুস সামাদ গাজী, মহেশ্বরীপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের শাহনেওয়াজ শিকারী, মহারাজপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মো. আবদুল্লাহ আল মাহমুদ, উত্তর বেদকাশী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মো. নুরুল ইসলাম সরদার, দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আছের আলী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

দাকোপ উপজেলার পানখালী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাব্বির আহমেদ, দাকোপ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিনয় কৃষ্ণ রায়, কৈলাশগঞ্জ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মিহির ম-ল, সুতারখালী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মাসুম আলী ফকির, কামারখোলা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের পঞ্চানন কুমার ম-ল, তিলডাঙ্গা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী জালালউদ্দিন গাজী, বাজুয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মানস কুমার রায়, বানিশান্তা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সুদেব কুমার রায় নির্বাচিত হয়েছেন। এর আগে দাকোপ উপজেলার লাউডোব ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের শেখ যুবরাজ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

বটিয়াঘাটা উপজেলার গঙ্গারামপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী আসলাম হালদার, বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী শেখ মো. আসাবুর রহমান, আমীরপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের জি এম মিলন নির্বাচিত হয়েছেন। দিঘলিয়া উপজেলার গাজীরহাট ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. মফিজুল ইসলাম, বারাকপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী গাজী জাকির হোসেন, দিঘলিয়া সদর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. হায়দার আলী মোড়ল, সেনহাটী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী জিয়া গাজী, আড়ংঘাটা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী এস এম ফরিদ আকতার, যোগীপোল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মো. সাজ্জাদুর রহমান লিঙ্কন নির্বাচিত হয়েছেন।

পাইকগাছা উপজেলার সোলাদানা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. আবদুল মান্নান গাজী, রাড়ুলী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের আবুল কালাম আজাদ, গড়ইখালী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আবদুস সালাম, গদাইপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের শেখ জিয়াদুল ইসলাম জিয়া, চাঁদখালী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শাহজাদা মো. আবু ইলিয়াস, দেলুটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের রিপন কুমার মন্ডল, লতা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের কাজল কান্তি বিশ্বাস, লস্কর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের কে এম আরিফুজ্জামান ও কপিলমুনি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মো. কওছার আলী জোয়াদ্দার নির্বাচিত হয়েছেন।

কয়রা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. হযরত আলী জানান, ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেওয়ায় কয়রা সদর ইউনিয়নের ৪ নম্বর কয়রা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের নির্বাচন বন্ধ করে দেওয়া হয়। সে কারণে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদের ফলাফল স্থগিত রাখা হয়েছে।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x