বিদেশি বোতলে নকল মদ তৈরি হতো ফরিদপুরে

কারখানায় অভিযান, ছাত্রলীগের তিন নেতাসহ গ্রেফতার ৯
বিদেশি বোতলে নকল মদ তৈরি হতো ফরিদপুরে
প্রতীকী ছবি

ফরিদপুরে নকল বিদেশি মদের একটি কারখানা শনাক্ত হয়েছে। এ সময় ছাত্রলীগের ফরিদপুর শহর শাখার তিন নেতাসহ ৯ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার রাত পর্যন্ত শহরের বিভিন্ন জায়গায় গোয়েন্দা পুলিশের বিভিন্ন দল অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ফরিদপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ এসব তথ্য জানায়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) জামাল পাশা।

অভিযানে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ৫২ বোতল ভর্তি বিদেশি নকল মদ, ৩০টি খালি বোতল, ১০ লিটার স্পিরিট, বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যালসহ মদ তৈরির বিভিন্ন উপাদান জব্দ করা হয়। গ্রেফতার হওয়া তিন ছাত্রলীগ নেতা হলেন— ফরিদপুর শহরের ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি শহরের ভাটিলক্ষ্মীপুর মহল্লার বাসিন্দা সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শুভ সরকার (২২), ১১ নম্বর ওয়ার্ডের সহ-সভাপতি শহরের দক্ষিণ আলীপুর মহল্লার বাসিন্দা এবছর উচ্চ মাধ্যমিক উত্তীর্ণ মো. আশিক ফকির (২১) ও ঐ ওয়ার্ডের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক একই মহল্লার বাসিন্দা সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের ডিগ্রি শিক্ষার্থী অনিক হোসেন (২৩)। জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি তানজিদুল রশিদ চৌধুরী রিয়ান বলেন, ঐ তিন ছাত্রনেতা মাদকের সঙ্গে জড়িত থাকায় তাদের দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

গ্রেফতার হওয়া অপর ব্যক্তিরা হলেন— শহরের রঘুনন্দনপুর এলাকার মো. তানভীর (১৯), একই মহল্লার মহিউদ্দিন শেখ ওরফে জুয়েল (৩২), শফিকুল ইসলাম (৩৪) ও শহরের দক্ষিণ আলীপুর মহল্লার ওবায়দুর শেখ (২১)। বাকি দুই জন কিশোর।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত মঙ্গলবার রাত সোয়া ১০টার দিকে আলীপুর সাজেদা কবির উদ্দিন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে ১৭ বছরের দুই কিশোরকে তিন বোতল বিদেশি মদসহ গ্রেফতার করে। একই সময় ঐ কিশোরদের আটক করে মারপিট ও চাঁদা দাবি করায় মো. অনিক হোসেন, মো. আশিক ফকির ও ওবায়দুর শেখকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্য মতে অন্যদের গ্রেফতার করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মহিউদ্দিন শেখ রঘুনন্দনপুর এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে নকল বিদেশি মদ তৈরি করে বাজারজাত করতেন। গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিদের ডোপ টেস্ট করে অনিক, আশিক, ওবায়দুর, শুভ ও তানভিরের প্রতিবেদন পজিটিভ পাওয়া গেছে।

গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুনীল কর্মকার জানান, এ ব্যাপারে ডিবির এসআই মো. শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে বুধবার দিবাগত রাতে ফরিদপুর কোতয়ালি থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেছেন। গ্রেফতার হওয়া ৯ জনের মধ্যে মহিউদ্দিন, শরিফুল ও তানভিরের পাঁচ দিন করে রিমান্ড চেয়ে এবং বাকিদের জেল হাজতে পাঠানোর আবেদন জানিয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে জেলার ১ নম্বর আমলি আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x