চলন্ত বাসে চবি ছাত্রীকে যৌন হয়রানি ও হত্যাচেষ্টার ঘটনায় চালক আটক

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:১১ | অনলাইন সংস্করণ

  চবি সংবাদদাতা

চবি ছাত্রী লাঞ্চিত। প্রতীকী ছবি।

বৃহস্পতিবার চলন্ত বাসে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানি ও প্রতিরোধ করলে শ্বাসরোধ করে হত্যাচেষ্টার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বাস শনাক্ত ও জব্দ করে কোতয়ালি থানা পুলিশ। পরে শুক্রবার রাত ১২টার দিকে নগরীর অক্সিজেন এলাকা থেকে বাসচালক বিপ্লব দেবনাথকেও (২৫) গ্রেফতার করে পুলিশ।

তবে এখনও পলাতক রয়েছে চালকের সহকারী। তাকে ধরতে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশের একাধিক টিম।

এ বিষয়ে কোতয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ‘রাতে অক্সিজেন এলাকা থেকে চালককে আটক করে পুলিশের একটি টিম। বাসটিও জব্দ করা হয়। পরে ওই ছাত্রী বাস ও চালককে শনাক্ত করলে দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। পলাতক বাস চালকের সহকারীকে আটক করতে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে।’

অর্থনীতি বিভাগের এক ছাত্রী বাসে লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করে ব্যবস্থা নিতে সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমানকে অনুরোধ জানিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।

তিনি ইত্তেফাককে বলেন, ‘আমাদের এক শিক্ষার্থীকে বাসে লাঞ্ছিত করার কথা শোনার পরই সিএমপি কমিশনারকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে কল করি। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানাই। তিনি পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে আশ্বস্ত করেছেন।’

এর আগে শুক্রবার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ভুক্তভোগী ছাত্রী বাদী হয়ে মামলাটি করেন। এতে অজ্ঞাতপরিচয় বাসের চালক ও তার সহকারীকে আসামি করা হয়।

আরও পড়ুনঃ প্রভাবশালী ধর্ষকের ভয়ে ধর্ষণের শিকার শিশুকে নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলো বাবা-মা

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে অর্থনীতি বিভাগের ওই ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৩ নম্বর বাসে নিউমার্কেট যাচ্ছিলেন। নিউমার্কেট যাওয়ার আগ মুহূর্তে সব যাত্রী নেমে গেলে ওই বাসে তিনি একা ছিলেন। তাকে একা পেয়ে হঠাৎ বাসটি রুট বদল করে স্টেশন রোডের দিকে মোড় নিয়ে গতি বাড়িয়ে দেয়। তিনি বাস থামাতে বললে চালকের সহকারী তার দিকে ছুটে আসে এবং তাকে জাপটে ধরে। এ সময় ওই ছাত্রী চিৎকার করলে তার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধের চেষ্টা করে। আত্মরক্ষার্থে ওই ছাত্রী তার হাতে থাকা মোবাইল দিয়ে চালকের সহকারীকে আঘাত করেন। তারপর চলন্ত বাস থেকে লাফ দেন। পরে ওই ছাত্রী শরীরে আঘাতের চিহ্ন নিয়ে এক রিকশাচালকের সাহায্যে বাসায় ফেরেন।

ইত্তেফাক/নূহু