বরিশালে আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশ : ১৫ জুন ২০১৯, ২০:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

  বরিশাল অফিস

মেহেন্দিগঞ্জ, বরিশাল। ছবি: গুগল ম্যাপ থেকে

বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জে ফখরুল হাওলাদার (৪৫) নামের এক আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। শনিবার বেলা ১১টার দিকে নিহতের বাসার অদূরে তাকে কুপিয়ে ফেলে রাখা হয়। পরবর্তীতে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্পিডবোটযোগে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে আসার পথে তিনি মারা যান।

জানা যায়, নিহত ফখরুল হাওলাদার মেহেন্দিগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চরহোগলা ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও একই ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ছিলেন। তিনি চরহোগলা গ্রামের মৃত আবুল হোসেন চাঁন মিয়ার পুত্র। 

প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতের স্বজনরা জানান, পূর্ব শত্রুতা ও বখাটেদের বিরোধীতা করায় শনিবার বেলা ১১টার দিকে স্থানীয় চিহ্নিত বখাটে মিজান, ইসমাইল, ফারুক ও শরিফ উদ্দিনের সঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতা ফখরুল হাওলাদারের বাকবিতণ্ডা হয়। এতে বখাটেরা ক্ষুব্ধ হয়ে তাদের সহযোগী পক্কি দফাদার, ইসমাইল বাঘা, ওমর আলী, উজ্জল ও ফারুকসহ অন্যান্য সহযোগীদের নিয়ে ধারালো দিয়ে ফখরুলের ওপর হামলা চালায়। একপর্যায়ে ধারালো দা দিয়ে ফখরুলকে এলোপাথারিভাবে কুপিয়ে বাঘাবাড়ি মসজিদের সামনের সড়কে ফেলে রাখে। খবর পেয়ে ফখরুলের ভাই একই ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য হুমায়ুন হাওলাদারসহ অন্যান্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে মুমূর্ষু অবস্থায় ফখরুলকে উদ্ধার করেন। তাকে প্রথমে উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে যান তারা। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের উদ্দেশে স্পিডবোটযোগে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু নদীপথের কিছুটা পাড়ি দেওয়ার পর পরই ফখরুল হাওলাদারের মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন:  শিবালয় উপজেলাকে ড্রেজারমুক্ত ঘোষণা

মেহেন্দিগঞ্জ থানার ওসি আবিদুর রহমান জানান, 'খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু হামলাকারীরা দ্রুত স্থান ত্যাগ করায় তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি। নিহত আওয়ামী লীগ নেতার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।' এছাড়াও হামলাকারীদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশের অভিযান চলছে বলেও ওসি জানান।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি