দেবিদ্বারে গৃহবধূ হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

প্রকাশ : ২২ জুলাই ২০১৯, ২০:৫০ | অনলাইন সংস্করণ

  দেবিদ্বার (কুমিল্লা) সংবাদদাতা

গুগল ম্যাপ

কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়ন এর উটখাড়া এলাকায় স্বামীর পাশবিক নির্যাতনে রেহানা বেগম (২৬) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। সোমবার সকালে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্স নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রেহানাকে মৃত ঘোষণা করে।

পরে দেবিদ্বার থানা পুলিশ নিহত রেহানা বেগমের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। 

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, একই উপজেলার জাফরগঞ্জ ইউনিয়ন এর দক্ষিণ নারায়নপুর গ্রামের মেয়ে রেহেনা বেগম এর সাথে এলাহাবাদ ইউপির উটখাড়া গ্রামের মো. খোরশেদ আলম (৩০) বিবাহ হয়। বিয়ের কয়েক বছর পর থেকেই বিভিন্নভাবে পারিবারিক কলহ ও পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে রেহেনার স্বামী খোরশেদ আলম। এ নিয়ে তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ শুরু হয়।

আরও পড়ুন : গুজব-গণপিটুনি বন্ধে সারাদেশের পুলিশকে বার্তা

রেহানা ও খোরশেদ এর পারিবারিক অশান্তি দূর করার লক্ষে স্থানীয়ভাবে কয়েকবার শালিশ বৈঠক করেও সমাধান মিলেনি। পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, গত রবিবার রাতে নিহত রেহানাকে মারধর করে তার স্বামী খোরশেদ আলম। এর পর রেহানা অসুস্থ হয়ে পড়লে সোমবার সকালে তাকে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। 

অন্যদিকে,ঘটনার সুষ্ঠ বিচারের দাবী জানিয়ে জাফরগঞ্জ ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন জানান, রেহানা আমার ইউনিয়ন  এর মেয়ে, তার স্বামীর অন্য মেয়ের সাথে পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। আমি নিজে কয়েকবার গ্রাম্য শালিশে তাদের মধ্যে মিলমিশ করে দিয়েছি। আমরা চাই এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত হোক এবং দোষীদের আইনের আওতায় আনা হউক। 

এদিকে দেবিদ্বার থানার এসআই সোহরাব হোসেন ভূইয়া জানান, সংবাদ পেয়ে হাসপাতাল থেকে নিহত রেহানার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনায় নিহতের পরিবার বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলার এজাহার পক্রিয়াধীন । জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত রেহানার স্বামী খোরশেদ আলমকে আটক করা হয়েছে। সুরতালে নিহতের গলায় দাগ পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। 

ইত্তেফাক/কেআই