ঢাকা শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬
৩০ °সে


রংপুর জিলা স্কুল-৯৪ ব্যাচের রজত জয়ন্তী

রংপুর জিলা স্কুল-৯৪ ব্যাচের রজত জয়ন্তী
রংপুর জিলা স্কুল-৯৪ ব্যাচের রজত জয়ন্তী

২৫ বছর পর সবার সঙ্গে দেখা হলো। অনভূতি একটু অন্যরকম। আগে একজনের সঙ্গে অপরজনের গলাগলি, হাসাহাসি-কতই না মধুর স্মৃতি। ২৫ বছর পর যখন দেখা হলো, সঙ্গে স্ত্রী ও সন্তান। ওই বন্ধুর সঙ্গে স্ত্রী ও সন্তান। তাতে কি? চিরচেনা স্কুল মাঠে বন্ধুকে পেয়ে চিৎকার করলাম, 'দোস্ত কতদিন দেখা হয় না। আয় আগে বুকের সঙ্গে বুক মিলিয়ে প্রাণটা জুড়িয়ে নিই।' মঙ্গলবার রংপুর জিলা স্কুল-৯৪ ব্যাচের রজত জয়ন্তী অনুষ্ঠানে এভাবেই সবাই মেতে ওঠে।

রংপুর জিলা স্কুলে ১৯৯৪ সালের এসএসসি ব্যাচের ১২৫ জন সাবেক শিক্ষার্থীর সপরিবারে মিলন মেলা বসে স্কুল মাঠে। অনুষ্ঠানের শুরুতে সাবেক শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের অংশগ্রহণে র‍্যালি বের হয়। এরপর ২৫ পাউন্ডের একটি কেক কেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন রংপুর জিলা স্কুলের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ কুদ্দুস আলী। অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ গ্রহণ করেন প্রধান শিক্ষক আবু রায়হান মিজানুর রহমান, সাবেক শিক্ষক আব্দুল বারী মিয়া, সুরেষ চন্দ্র বর্মন, শহীদুল হক, সুবোধ চন্দ্র দেবনাথ, সৈয়দ আলী, একে নূর আহমেদ ও আলী আহমেদ জাহাঙ্গীর।

রজত জয়ন্তী উদযাপনের কমিটির ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক আলী রায়হান মিলনের তত্বাবধানে অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন আ স ম শফিউল আলম মামুন। সার্বিক সহযোগিতা করেন কমিটির আহবায়ক মিজানুর রহমান তুহিন, ডা. মামুনুর রশীদ নয়ন, রূপম, রুবেল, ইমন, শরীফ, দীপন, ইবনুল, আবু তালেব সোহেল, ডা. হারুনুর রশীদ পলাশ, কামরুজ্জামান, হীরা, জীবনসহ অনেকে। এই সুবর্ণ জয়ন্তীতে অংশ নিতে সুদূর অস্ট্রেলিয়া থেকে মেহেদি হাসান সুমন নামে একজন সাবেক শিক্ষার্থী রংপুর জিলা স্কুলে আসেন। স্কুল মাঠে দিন ব্যাপি সাবেক শিক্ষার্থীদের সন্তানদের খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও স্মৃতিচারণের মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।

ইত্তেফাক/আরকেজি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৭ আগস্ট, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন