বগুড়া-২: ঐক্যফ্রন্টের মান্নার সঙ্গে লড়াই হবে মহাজোটের জিন্নাহর

বগুড়া-২: ঐক্যফ্রন্টের মান্নার সঙ্গে লড়াই হবে মহাজোটের জিন্নাহর
ঐক্যফ্রন্টের মাহমুদুর রহমান মান্না ও মহাজোটের জাপার প্রার্থী শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ। ছবি: ইত্তেফাক

বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ) আসনটি বরাবরই জামায়াত, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি শাসন করে এসেছে। বিগত কয়েকটি সংসদ নির্বাচনের ফলাফল বিশ্লেষণে এই তথ্য পাওয়া গেছে। এই আসনটি থেকে আওয়ামী লীগ কখনো জয়লাভ করতে পারেনি। এবার এই আসন থেকে জাতীয় রাজনীতির হেভিওয়েট প্রার্থী ঐক্যফ্রন্টের নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করছেন। বিএনপি ছাড়াও জামায়াতের ভোট ব্যাংক হিসেবে পরিচিতি এই আসন থেকে জামায়াতের ভোট কতটি পাবেন সাবেক এই বাম নেতা মান্না তা ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে বলে ভোটাররা মনে করেন।

এই আসনে মাহমুদুর রহমান মান্নার ধানের শীষের সাথে লড়াই হবে মহাজোটের জাপার প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য শরিফুল ইসলাম জিন্নাহর। এই আসন থেকে জামায়াত প্রার্থী না পেয়ে কিছুটা নাখোশ বলে জানা গেছে। শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানও জামায়াত নেতা। ভোটাররা মনে করছেন, জামায়াত-বিএনপি এক জোট থাকলে একাধিকবার হেরে যাওয়া মান্না এবার শীষে পার হতে পারেন।

অন্যদিকে মহাজোটের প্রার্থী জাপা বগুড়া জেলা কমিটির সভাপতি বর্তমান সংসদ সদস্য এলাকায় শক্ত প্রার্থী হিসেবে পরিচিত। তিনি ধানের শীষ প্রার্থীর সাথে লড়াই করবেন এমনটাই মনে করেন দলীয় নেতা কর্মী ও ভোটাররা। এই আসনে শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়রও একজন আওয়ামী লীগ নেতা।

আরো পুড়ুন: বগুড়া-১: জমজমাট লড়াই হবে নৌকা-ধানের শীষ প্রার্থীর

১৯৯১ সালের নির্বাচনে এই আসনে জামায়াতের মাওলানা শাহাদাতুজ্জামান ৩৩ হাজার ৯৬৯ ভোট পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। তার প্রতিপক্ষ বিএনপির মতিয়র রহমান পেয়েছিলেন ২৪ হাজার ২১৩ ভোট। মাহমুদুর রহমান মান্না কাস্তে মার্কা নিয়ে পেয়েছিলেন ২ হাজার ১৮৯ ভোট। ১৯৯৬ ও ২০০১ সালে বিএনপির প্রার্থী যথাক্রমে অ্যাডভোকেট হাফিজুর রহমান ও অ্যাডভোকেট রেজাউল বারী ডিনা সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। ৯৬ সালের নির্বাচনে জামায়াতের শাহাদাতুজ্জামান ২৪ হাজার ৫৯৩ ভোট পেয়ে ২য়, জাপার শরিফুল ইসলাম ২১ হাজার ৫১৮ ভোট পেয়ে ৩য়, আওয়ামী লীগের মাহমুদুর রহমান মান্না ১৯ হাজার৮৭১ ভোট পেয়ে ৪র্থ হয়েছিলেন। ২০০১ সালের নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী মাহমুদুর রহমান মান্না বিএনপি প্রার্থীর অর্ধেক ভোটের কম ভোট পেয়ে হেরে যান। এই নির্বাচনে জাপার শরিফুল ইসলাম ৩য় হয়েছিলেন। এই আসনে আরো যারা প্রার্থী তারা হলেন- মুসলিম লীগের শফিকুল ইসলাম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. জামাল উদ্দিন।

ইত্তেফাক/বিএএফ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x