ঢাকা বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬
৩২ °সে


মুজিববর্ষ উদযাপনের আগেই বঙ্গবন্ধু মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র : ইয়াফেস ওসমান

মুজিববর্ষ উদযাপনের আগেই বঙ্গবন্ধু মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র : ইয়াফেস ওসমান
প্রযুক্তিবিষয়ক মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান।ছবি ইত্তেফাক

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী (মুজিববর্ষ) পালনের আগেই বঙ্গবন্ধু মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র দৃশ্যমান হবে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান । তিনি বলেন, ফরিদপুরের ভাঙ্গায় এ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন হলে সারা দুনিয়ার মানুষ এই উপজেলাকে দেখবে ও জানবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার হল রুমে ‘বঙ্গবন্ধু মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন’ শীর্ষক প্রকল্প বাস্তবায়ন বিষয়ক মত বিনিময় সভায় এ কথা জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, কর্কট ক্রান্তি এবং ৯০ ডিগ্রি দ্রাঘিমার ছেদ বিন্দু ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে এটি স্থাপিত হতে যাছে। বঙ্গবন্ধু মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র ও পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে সমগ্র বিশ্ববাসী এখানে আসবে। ভাঙ্গা আর তখন ভাঙ্গা থাকবেনা, এটা গড়া শুরু হয়ে গেছে। আপনারা বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করুন। তিনিই আপনাদের উন্নয়ন দিয়ে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে শেখাবে।

আয়োজিত সভায় অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসাবে ছিলেন ফরিদপুর-৪ আসনের সাংসদ মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন, জেলা প্রশাসক অতুল সরকার ও জেলা পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান।

আরও পডুন: সমাধান হওয়া ইস্যু হালে পানি পাবে না: ঐক্যফ্রন্টকে ড. হাছান মাহমুদ

শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, ভৌগলিক পৃথিবীর চারটি উত্তর-দক্ষিণ রেখা এবং তিনটি পূর্ব-পশ্চিম রেখা, সব মিলিয়ে বারো জায়গায় ছেদ করেছে। নিঃসন্দেহে এই বারোটি বিন্দু হচ্ছে পৃথিবীর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিন্দু। বারোটি বিন্দুর দশটি বিন্দুই পড়েছে সাগরে-মহাসাগরে। তাই মানুষ সেখানে যেতে পারে না। একটি পড়েছে সাহারা মরুভূমিতে, সেখানেও মানুষজন যায় না। শুধু একটি বিন্দু পড়েছে শুকনো মাটিতে, যেখানে মানুষ যেতে পারে। সেই বিন্দুটি পড়েছে ভাঙ্গা উপজেলার নূরুল্লাগঞ্জ ইউনিয়নের ভাঙ্গারদিয়া গ্রামের বিল ধোপাডাঙ্গা মৌজার এক টুকরো আবাদি কৃষি জমির উপর। ভৌগলিক গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট কর্কটক্রান্তি এবং ৯০ ডিগ্রি দ্রাঘিমার ছেদ বিন্দুটি ঘিরে সরকারি পর্যায়ে ধোপাডাঙ্গা মৌজার এই জমি এলাকা সরেজমিনে পরিদর্শন করেছি। বিশ্ববাসী আমাদের এখানে দেখতে আসবে, গবেষণা হবে, সেইসঙ্গে ভাঙ্গার চিত্রটাই পাল্টে গিয়ে এলাকাটি আধুনিক হয়ে উঠবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ফরিদপুর-৪ আসনের সাংসদ মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন বলেন, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়ন দিয়ে যেভাবে বাংলাদেশকে সাজিয়েছেন ঠিক তার অনুপ্রেরণায় আমিও এই আসনকে উন্নয়ন দিয়ে মডেল আসন হিসাবে দাঁড় করাতে চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমার সংসদীয় আসনটিকে আগামী বাংলাদেশের মধ্যে অন্যতম আসনের রূপান্তরিত করবো। সকলে মিলে আমরা শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে পারলে আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই ভাঙ্গা আর ভাঙ্গা থাকবেনা। ভাঙ্গা হবে বিশ্ববাসীর কাছে উজ্জ্বল নক্ষত্র। তাই এখন থেকেই প্রধানমন্ত্রীর হাতে হাত রেখে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হই।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুকতাদিরুল আহমেদের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজী রবিউল ইসলাম, ভাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম হাবিবুর রহমান, সদরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফি কাজী, চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি হিমাদ্রি খীসা, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ ও সংবাদকর্মী প্রমুখ।

ইত্তেফাক/এএএম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৩ নভেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন