ঢাকা মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
২৭ °সে


ইরানে বিক্ষোভকারীদের পক্ষে যুক্তরাষ্ট্র

ইরানে বিক্ষোভকারীদের পক্ষে যুক্তরাষ্ট্র
মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। ছবি সংগৃহীত

জ্বালানী তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে বিক্ষোভে নেমেছে ইরানি জনগণ। শনিবার শুরু হওয়া বিক্ষোভের এক দিন যেতে না যেতেই সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের পক্ষে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। রবিবার আন্দোলনে সমর্থন প্রদানের ইঙ্গিত দিয়ে উস্কানিমূলক একটি টুইটবার্তা প্রকাশ করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। খবর টাইমস অব ইসরায়েলের।

নিজের টুইটবার্তায় পম্পেও বলেন, 'দেড় বছর আগে আমি ইরানের জনগণকে যা বলেছিলাম, এখনও তাই বলছি- যুক্তরাষ্ট্র আপনাদের পক্ষে আছে।' মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, 'দীর্ঘ ৪০ বছরের স্বৈরশাসন ভোগ করার পর ইরানের জনগণ আর তাদের সরকারের নির্যাতনের বিরুদ্ধে চুপ থাকবে না। আর আমরাও চুপ থাকব না। ইরানের জনগণকে আমি একটা বার্তা দিতে চাই : যুক্তরাষ্ট্র আপনাদের আওয়াজ শুনছে। আমরা আপনাদের সমর্থন দেব। একইসঙ্গে আমরা আপনারদের পাশে দাঁড়াব।'

আগামী বছরের ফেব্রুয়ারীতে ইরানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হওয়ার কথা। কিন্তু সাম্প্রতিক আন্দোলনের কারণে দেশটির বর্তমান প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির ক্ষমতা ধরে রাখার সম্ভাবনায় বড় ধরনের ধাক্কা লেগেছে। উপর্যুপরি বেকার বৃদ্ধি ও মুদ্রার মূল্যমানে ধ্বসের কারণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ইরানের স্বাভাবিক জনজীবন।

আরও পড়ুন: ‘সরকারের মদদপুষ্ট ব্যবসায়ীদের কারণেই পেঁয়াজের দামে ঊর্ধ্বগতি’

সর্বশেষ ইরান সরকারের তেলের দাম ৫০ শতাংশ বৃদ্ধির সিদ্ধান্তে ফুঁসে উঠেছে ইরানের জনগণ। শনিবার ভোররাত থেকে শুরু হওয়া আন্দোলন ইরানের প্রায় সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে ইতিমধ্যে। বিক্ষোভকারীদের অবরোধের দরুণ বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে দেশটির সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা।

উল্লেখ্য, পারমানবিক চুক্তি ইস্যুতে ইরানের উপর লাগাতার বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আসছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। সর্বশেষ দেশটির জ্বালানী তেল রপ্তানীর উপর নতুন আরেকটি নিষেধাজ্ঞা জারি করে ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকার। এর ফলে উদ্ভুত অর্থনৈতিক সংকট মোকাবেলায় অভ্যন্তরীণ বাজারে জ্বালানী তেলের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নেয় ইরান সরকার।

ইত্তেফাক/এসএইচএম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১০ ডিসেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন