ঢাকা বুধবার, ২২ জানুয়ারি ২০২০, ৯ মাঘ ১৪২৭
২৪ °সে

উত্তাল ভারত: যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা ও ফ্রান্সের ভ্রমণ সতর্কতা   

উত্তাল ভারত: যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা ও ফ্রান্সের ভ্রমণ সতর্কতা   
বাসে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারী। ছবি: সংগৃহীত

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের (সিএবি) প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠেছে ভারত। দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে বিক্ষোভ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। ট্রেনে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। পুলিশ অর্ধশতাধিক বিক্ষোভকারীকে আটক করেছে। আসাম, ত্রিপুরা, মেঘালয়, মণিপুরের একাধিক জায়গায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। বন্ধ রয়েছে মোবাইল ও ইন্টারনেট পরিষেবা। বিক্ষোভের জেরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন অন্তত ৫ জন। এমন পরিস্থিতি ভারতের উত্তরপূর্ব রাজ্যগুলিতে ভ্রমণ সতর্কতা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা ও ফ্রান্স।

এসব দেশ তাদের নাগরিকদের প্রয়োজন ছাড়া ওইসব এলাকায় না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছ। সেইসঙ্গে এসব দেশ এখন ভারতে অবস্থানরত তাদের নাগরিকদের স্থানীয় কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা এবং গণমাধ্যমের খবর অনুসরণেরও পরামর্শ দিয়েছে।

সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, কানাডা, ফ্রান্স উত্তরপূর্ব ভারতে ভ্রমণে না গরিকদের অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করতে বলেছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, শনিবার সন্ধ্যায় পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার লালগোলা রেল স্টেশনে পাঁচটি ট্রেনে আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। হাওড়া রেলস্টেশন ও এর আশেপাশে কয়েকশো মানুষ রাস্তা অবরোধ করে রেল স্টেশন আগুন ধরিয়ে দেয়।

বিবিসির খবরে বলা হয়, শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ আর হাওড়াতে বিক্ষোভের সময়ে বেশ কয়েকটি ট্রেন আর দুটি রেল স্টেশনে ভাঙচুর করা হয়। জ্বালিয়ে দেওয়া হয় বাস। উলুবেড়িয়া স্টেশনে দাঁড়িয়ে থাকা কয়েকটি ট্রেনে হামলা করায় হয়। তারপরে দুটি স্টেশনের সামনেই আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। বন্ধ হয়ে যায় ট্রেন চলাচল। ফলে হাওড়া থেকে খড়গপুর ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

এছাড়া বেলডাঙ্গা স্টেশনেও ভাঙচুর চলে। ওই এলাকার কয়েকটি বাস আর গাড়িতেও ভাঙচুর চালানোর পরে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। বিক্ষোভের সময় পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় বিজেপির এক রাজ্যস্তরের নেতা আক্রান্ত হন। উত্তরপ্রদেশের আলিগড়েও শুক্রবার ছাত্র আর শিক্ষকরা বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। তারা নাগরিকত্ব আইনের সংশোধনী প্রত্যাহারের দাবি তুলেছেন।

অপরদিকে মুসলমান এবং প্রতিবেশী তিন দেশের সংখ্যালঘু মানুষদের নাগরিকত্ব দিতে দিল্লির জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরাও বিক্ষোভ করে। এসময় ছাত্রদের ওপরে লাঠি চার্জ এবং কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে পুলিশ। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে গোয়াতেও বিক্ষোভ হয়েছে। আসামেও হয়েছে ব্যাপক বিক্ষোভ। সেখানে কারফিউ ভেঙ্গে রাস্তায় নেমে আসে মানুষ।

ইত্তেফাক/এস আর

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
২২ জানুয়ারি, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন