বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা শুক্রবার, ০৭ আগস্ট ২০২০, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭
৩২ °সে

৬০ বছর পেরিয়ে প্রেম, বৃদ্ধাশ্রমেই বিয়ে!

৬০ বছর পেরিয়ে প্রেম, বৃদ্ধাশ্রমেই বিয়ে!
ছবি: সংগৃহীত।

প্রেমের কোনো বয়স নেই। প্রেম মানে না কোন বাধা। এই প্রেম কবে, কখন আসবে তাও কারো নেই জানা। সেটি আবারো প্রমাণ করলেন লক্ষ্মী আমল ও কোচানিয়ান মেনন নামে দুজন ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তি। গত শনিবার ভারতের ত্রিশুর জেলার রামবারমাপুরমের সরকারি এক বৃদ্ধাশ্রমে এমনই বিয়ের ঘটনা ঘটেছে। তাদের বিয়ে ও বিয়ের ছবি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল।

ভারতীয় একাধিক গণমাধ্যমে জানানো হয়েছে, ষাট পেরিয়ে দু'জনে ভালোবেসেছেন একে অপরকে। তাও আবার সরকারি বৃদ্ধাশ্রম রামবারমাপুরমে! বৃদ্ধাশ্রমের আবাসিকরা ভীষণ খুশি তাদের ভালোবাসায়। সেই প্রেম শুধুই বন্ধনহীন গ্রন্থি বেঁধে দেয়নি। রীতিমতো সাতপাক ঘুরিয়েছে তাদের। ৬৭ বছর শেষের এই ঘটনায় দারুণ খুশি নেটিজেনরাও।

বিয়েতে কনে লক্ষ্মী পরেছিলেন লাল সিল্কের শাড়ি। চুলে ছিল ফুলের মালা। আর বর কোচানিয়ান পরনে ছিল ঘিয়ে রঙের ঐতিহ্যবাহী মুণ্ডু ও শার্ট। দু'জনের গলায় ছিলো মোটা ফুলের মালা।

আরও পড়ুন: মায়ের কারণেই ১৫ বছর বয়সে ধর্ষিত হন ডেমি মুর

টুইটারে একজন লিখেছেন, সব বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে জয় হোক প্রেমের। কেরালায় বৃদ্ধাশ্রমে প্রথম কোনো বৃদ্ধ দম্পতির বিয়ের ঘটনায় অভিনন্দন জানিয়ে আরেকজন লিখেছেন, প্রেম কোনো বাধা মানে না। যেকোনো বয়সে, যেকোনো জায়গায় প্রেমের জয় হয়।

বর কনেকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আরেকজন লিখেছেন, হার্ট ইমোজি আর স্মাইলি দিয়ে। মানতেই হবে, বিশ্বজোড়া ফাঁদ পেতেছে প্রেম!

বৃদ্ধাশ্রমের তত্ত্বাবধায়ক জয়কুমার জানান, সুন্দর একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাদের বিয়ে হয়েছে। লক্ষ্মী ও কোচানিয়ান ৩০ বছর ধরে পরস্পরকে চেনেন। কোচানিয়ান লক্ষ্মীর স্বামীর সহকারী ছিলেন। লক্ষ্মীর স্বামী মারা যান আজ থেকে ২১ বছর আগে। স্বামীর মৃত্যুর পর তিনি এতো দিন আত্মীয়দের সঙ্গে ছিলেন। দুই বছর আগে এই বৃদ্ধাশ্রমে আসেন। আর কোচানিয়ান মাত্র দুই মাস আগে এই বৃদ্ধাশ্রমে আসেন।

ইত্তেফাক/বিএএফ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত