ঢাকা শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
২৬ °সে

করোনা নিয়ে বিশ্বনেতাদের আটটি বিতর্কিত মন্তব্য

করোনা নিয়ে বিশ্বনেতাদের আটটি বিতর্কিত মন্তব্য
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। ছবি সংগৃহীত

করোনা ভাইরাসে বিশ্বে ৭২ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে ১৩ লাখেরও বেশি মানুষ এবং এই মহামারি সামাল দিতে প্রায় সব দেশের সরকারই হিমশিম খাচ্ছে। তবে বিশ্বের কিছুসংখ্যক দেশের নেতা এই ভাইরাস নিয়ে এমন ধরনের মন্তব্য করেছেন, যাতে এই মহামারির ভয়াবহতাকে খাটো করে দেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে। এ ধরনের মন্তব্যের মাধ্যমে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানোর কারণেও তারা সমালোচিত হচ্ছেন। এরকম কয়েকটি বিতর্কিত মন্তব্য তুলে ধরা হলো—

যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম যেদিন করোনা ভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হওয়ার খবর রিপোর্ট করা হলো, তার দুই দিন পর ২২ জানুয়ারি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সিএনবিসিকে বলেন, সবকিছু আমাদের নিয়ন্ত্রণে আছে। ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জায়র বোলসোনারো বলেছিলেন, এটা সামান্য ফ্লুর মতো। তিনি সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কিছু নির্দেশনাও বারবার ভঙ্গ করেছেন।

ফিলিপিনের প্রেসিডেন্ট রুদ্রিগো দুতের্তে খাবারের প্রতিবাদ করা বিক্ষোভকারীদের হুমকি দেন, ‘সমস্যা তৈরি কোরো না, আমি তোমাকে কবর দিয়ে দেব।’ ব্রিটেনে কোভিড-১৯ সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার পরও ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ৩ মার্চ সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বলেছেন যে তিনি লোকজনের সঙ্গে করমর্দন করার ব্যাপারে উদ্বিগ্ন নন। করোনা ভাইরাস মহামারির ব্যাপারে বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কো যে মনোভাব দেখিয়েছেন, তাতে অনেকেই বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। তার দেশেও করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হলে তিনি হাস্যচ্ছলে তা উড়িয়ে দিয়েছেন। প্রেসিডেন্ট বলেন, তিনি তো এই ভাইরাসকে চারপাশে উড়তে দেখেননি। মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদোর কোভিড-১৯ মোকাবিলায় স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের দেওয়া উপদেশের বিরোধিতা করেছেন। তিনি বরং অনেককে বলেছেন, পরিবারকে নিয়ে বাইরে খাওয়া চালিয়ে যান। ইরাকে প্রভাবশালী শিয়া নেতা মুক্তাদা আল-সদর যুক্তরাষ্ট্রবিরোধী দেশগুলোতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে দিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে অভিযুক্ত করেছেন। তিনি ভাইরাসের বিস্তারের জন্য সমকামী বিবাহ আইনকে দায়ী করেছেন।

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো স্বীকার করেছেন, উদ্দেশ্যমূলকভাবেই তিনি কোভিড-১৯ সংক্রান্ত কিছু তথ্য গোপন করেছিলেন। ঠিক কতজন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, সেটি জানানো হয়নি। তিনি বলেছেন, লোকজন যাতে পাগলের মতো কেনাকাটা শুরু না করে দেয়, সেজন্যই এই তথ্য গোপন করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/এএম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৯ মে, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন