ঢাকা শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
২৯ °সে

বেঁচে যাওয়া ব্যক্তির মুখে পাকিস্তানের উড়োজাহাজ দুর্ঘটনার লোমহর্ষক বর্ণনা

বেঁচে যাওয়া ব্যক্তির মুখে পাকিস্তানের উড়োজাহাজ দুর্ঘটনার লোমহর্ষক বর্ণনা
পাকিস্তানে উড়োজাহাজ দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া মুহাম্মেদ জুবায়ের।

পাকিস্তানের করাচিতে গতকাল শুক্রবার ৯৯ জন যাত্রী নিয়ে বিধ্বস্ত হয় একটি উড়োজাহাজ। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৯৭ জনই মারা গেছেন। তবে এমন বড় দুর্ঘটনার পরেও ভাগ্য জোরে বেঁচে গেছেন ওই উড়োজাহাজে থাকা দুজন। তাদের একজনই শুনিয়েছেন উড়োজাহাজ দুর্ঘটনার লোমহর্ষক বর্ণনা।

জানা গেছে, পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটটিতে যাত্রীরা ঈদের ছুটিতে লাহোর থেকে করাচি যাচ্ছিলেন। উড়োজাহাজটি করাচির জিন্নাহ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে নামানোর চেষ্টাকালে পাকিস্তান স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ৩০ মিনিটের দিকে বিধ্বস্ত হয়।

মুহাম্মেদ জুবায়ের নামের বেঁচে যাওয়া ওই যাত্রী জানান,আমরা কেউই জানতাম না যে বিমানটি বিধ্বস্ত হবে। তারা খুব ভালোভাবেই বিমানটি পরিচালনা করছিলেন।

বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পর ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর বের হয়ে আসেন মুহাম্মেদ জুবায়ের। তিনি বলেন, আমি সব দিক থেকে শুধু চিৎকার শুনেছি। আমি যা দেখেছি তা হলো শুধু আগুন। আমি কোন মানুষকে দেখতে পাইনি।

বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পর পরই জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন বলে জানান মুহাম্মেদ জুবায়ের। জুবায়ের বলেন, জ্ঞান ফেরার পর আমি একটু আলো দেখতে পাই। এরপর আমি আমার সিট বেল্ট খুলে ওই আলোর দিকে যাই। আমি প্রায় ১০ ফিট নিচে লাফ দেই বাঁচার জন্য।

এদিকে এই বিমান দুর্ঘটনার কারণ এখনো জানা যায়নি। তবে পাকিস্তানের একজন সিভিল এভিয়েশন কর্মকর্তা রয়টার্সকে জানান, বিমানের আন্ডারক্যারেজ ঠিক সময়মতো না নামানোর কারণে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে।

ইত্তেফাক/এআর

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
৩০ মে, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন