মেঘালয়ে ১৯ দিন ধরে খনিতে আটকা ১৫ জন, চলছে উদ্ধার চেষ্টা

মেঘালয়ে ১৯ দিন ধরে খনিতে আটকা ১৫ জন, চলছে উদ্ধার চেষ্টা
ভারতের মেঘালয় রাজ্যে খনি থেকে কয়লা তুলতে গিয়ে নিখোঁজ ১৫ জনকে উদ্ধারে একাধিক বাহিনী যৌথ টাস্কফোর্স গঠন করে চালিয়ে যাচ্ছে প্রচেষ্টা। ছবি: আনন্দবাজার।

ভারতের মেঘালয় রাজ্যে আদালত ঘোষিত অবৈধ খনি থেকে কয়লা তুলতে গিয়ে নিখোঁজ ১৫ জনকে ১৯ দিনেও উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। গেল ১৪ই ডিসেম্বর থেকে ভেতরে আটকা পড়ে আছেন তারা। শ্রমিকদের উদ্ধারে একাধিক বাহিনী যৌথ টাস্কফোর্স গঠন করে চালিয়ে যাচ্ছে প্রচেষ্টা।

আনন্দবাজার জানায়, দুর্ঘটনার পর থেকেই খনির পাশে ঘাঁটি গেড়েছিল ভারতের ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স বা এনডিআরএফ-এর ১০০ জনের একটি উদ্ধারকারী দল। এর সঙ্গে যোগ দিয়েছে ওডিশা রাজ্যের দমকল বাহিনী, কোল ইন্ডিয়া এবং নৌবাহিনী।

নৌবাহিনীর ডুবুরিরা খনির তলদেশে নেমে দেখেছেন, ভেতরে ঘুটঘুটে অন্ধকার। দৃশ্যমানতা খুবই কম। শুধু ডুবুরির বিশেষ পোশাকের মাথায় থাকা টর্চের মতো আলোই ভরসা। খনিমুখের যেখান থেকে পানি শুরু, সেখানেও পর্যাপ্ত আলো নেই। তীব্র হ্যালোজেন জ্বালানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। নানা প্রস্তুতি শেষে সোমবার থেকে চলছে চূড়ান্ত অভিযান।

আরও পড়ুনঃ নির্বাচন কেন্দ্রে হিরো আলমের অ্যাকশন, ভিডিও ভাইরাল

খনিটির পাশ দিয়ে একটি নদী বয়ে গেছে। নদী পার্শ্ববর্তী হওয়ায় এটির পানির স্তর অনেকটাই উঁচুতে ছিল। তাই কিছুটা মাটি খুঁড়লেই পানি উঠে আসতো খনি থেকে। খনির আকরিক নদীর জলে মিশে যাওয়ায় নদীর জলও দূষিত হয়ে পড়ে। তাই ২০১৪ সাল থেকে ভারতের জাতীয় পরিবেশ আদালত খনিটি অবৈধ ঘোষণা করে।

আদালত এই খনিকে অবৈধ ঘোষণা করলেও গ্রামবাসীরা খনন করার যন্ত্রপাতি দিয়ে ছোট ছোট গর্ত করে কয়লার আকরিক তুলতেন। দুর্ঘটনার দিনও কয়েকজন মিলে আকরিক তুলতে যান। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, তারা খনির ভেতরে ঢোকার কিছুক্ষণ পরই খনির মুখ পানিতে ডুবে যায়।

ইত্তেফাক/টিএস

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x