গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিসহ ১০ হাজার ভারতীয়ের তথ্য চীনের কাছে

গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিসহ ১০ হাজার ভারতীয়ের তথ্য চীনের কাছে
ছবি: দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

ভারত-চীন সীমান্তে উত্তেজনা এখনো কাটেনি। এরই মধ্যে নতুন খবর এসেছে, ভারতের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও রাজনৈতিক নেতাসহ ১০ হাজার জনের উপর নজর রেখেছে বেইজিং।

দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের অনুসন্ধানমূলক এক প্রতিবেদনে এমনটি দাবি করা হচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, চীনের ওয়েবসাইট ঝেনহুয়া ডেটা ইনফরমেশন টেকনোলজি, যারা বিদেশি ব্যক্তিদের নিশানা করে থাকে। এ বিষয়ে জানতে গেলে তারা বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়া শুরু করে।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, ভারতের সেনাপ্রধান থেকে শুরু করে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ তিনটি গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার অন্তত ১৪ জনের উপর নজরদারি করা হচ্ছে।

এ ছাড়া ভারতের পরমাণু শক্তি কমিশন ও মহাকাশ গবেষণা সংস্থার বিজ্ঞানীরাও অন্তর্ভুক্ত রয়েছেন চীনের নজরদারিতে।

ঝেনহুয়া ডেটা কী?

ঝেনহুয়া ডেটা চীনের একটি ওয়েবসাইট। তারা মূলত রাজনীতি, সরকার, ব্যবসা, প্রযুক্তি, মিডিয়া এবং নাগরিক সমাজে নামীদামী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে নজরে রাখে।

চীনা গোয়েন্দা সংস্থা, সামরিক ও প্রতিরক্ষা সংস্থাগুলির সঙ্গে কাজ করে থাকে ঝেনহুয়া। সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে ডিজিটাল কার্যকলাপ পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে একটি ডেটা লাইব্রেরি তৈরি করে।

ঝেনহুয়া সোশাল মিডিয়া থেকে শুধুই তথ্য নেয় না। আরও অনেক গোপনীয় তথ্য নেওয়া হচ্ছে যা চিন্তার কারণ হয়ে উঠছে। তারা সব তথ্য আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স দিয়ে নিয়ে থাকে।

এই সকল তথ্য দেশিয় প্রতিরক্ষা সংস্থা আইনশৃঙ্খলা ঠিক রাখার জন্য ব্যবহার করতে পারে। কিন্তু বিদেশি সংস্থার হাতে এই তথ্য যাওয়ার অর্থ হল মারাত্মক। বিভিন্ন উদ্দেশ্যে এই তথ্য কাজে লাগাতে পারে তারা।

১৯৯৯ সালের প্রথম দিকে, চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির একটি প্রকাশনা হাইব্রিড ওয়ারফেয়ারের মাধ্যমে সেনাবাহিনী থেকে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও প্রযুক্তিগত দিকে সহিংসতার ঘটনা ঘটায়।

সেই প্রতিবেদনের লেখক কর্নেল কিয়াও লিয়াং এবং কর্নেল ওয়াং জিয়াংসুই লিখেছেন, এই যুদ্ধের নতুন অস্ত্রগুলো ছিল 'সাধারণ মানুষের জীবনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত কিছু ঘটনা'। যেখানে একদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে আপনি জানতে পারলেন কিছু স্বাভাবিক জিনিস বদলে গেল আপত্তিকর এবং মারাত্মক পরিস্থিতিতে।

ইত্তেফাক/জেডএইচ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত