পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে সন্ত্রাসবাদী দলের যোগাযোগ

পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে সন্ত্রাসবাদী দলের যোগাযোগ
পাকিস্তানের পতাকা ও এফএটিএফের লোগো। ছবি: সংগৃহীত

সন্ত্রাসবাদে ইসলামাবাদের অব্যাহত আর্থিক সহায়তার প্রমাণ মেলেছে। অক্টোবরে ফিন্যান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স (এফএটিএফ) অ্যাকশন প্ল্যান বাস্তবায়নে পর্যালোচনা করবে।

এদিকে পাকিস্তানের আন্তঃবাহিনী গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের সংযোগের বিষয় নিশ্চিত করেছে নিরাপত্তা সংস্থাগুলো।

এফএটিএফের পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে পাকিস্তানের গ্রে তালিকাভুক্ত হওয়ার কারণে জল আরও ঘোলা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

পাকিস্তান যে সন্ত্রাসবাদী দলগুলোকে ভারতে সন্ত্রাসী কার্যক্রমের জন্য ব্যবহার করেছিল তার মধ্যে অন্যতম হিজবুল মুজাহিদিন (এইচএম)। এই সন্ত্রাসবাদী দলের নেতৃত্বে রয়েছেন মোহাম্মদ ইউসুফ শাহ। যিনি সৈয়দ সালাহউদ্দিন নামে পরিচিত। তিনি ইউনাইটেড জিহাদ কাউন্সিলের (ইউজেসি) প্রধান। এটা লস্কর-ই-তৈয়বা (এলইটি) এবং জাইশ-ই-মোহাম্মদ (জেএম) এর মতো সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের একটি ছাতা সংগঠন।

পাকিস্তান কর্তাদের নির্দেশে সালাহউদ্দিন জম্মু ও কাশ্মীরে ভারতবিরোধী প্রচার এবং সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালনায় সহায়ক ভূমিকা পালন করেছেন। জম্মু ও কাশ্মীরের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে সন্ত্রাসবাদ এবং বিচ্ছিন্নতাবাদী তৎপরতার জন্য তহবিল সরবরাহের ক্ষেত্রে পাকিস্তানের ভূমিকা বারবার স্বীকার করেছেন সালাহউদ্দিন।

২০১২ সালের জুনে একটি সাক্ষাত্কারে সালাহউদ্দিন বলেছিলেন, তিনি কাশ্মীরে পাকিস্তানের হয়ে যুদ্ধ পরিচালনা করছেন। তিনি আরও বলেছিলেন, মুজাহিদীন সংগ্রাম পাকিস্তানের পক্ষে প্রতিরক্ষা রেখা হিসেবে কাজ করে।

সম্প্রতি, ভারতীয় আইন শৃঙ্খলা সংস্থাগুলো আইএসআই এবং সালাহউদ্দিনের মধ্যে সরাসরি যোগাযোগের সুনির্দিষ্ট প্রমাণ পেয়েছে। মোহাম্মদ ইউসুফ শাহ ওরফে সৈয়দ সালাহউদ্দিনের নামে জারি করা একটি চিঠিতে প্রমাণ হয়েছে যে, তিনি গোয়েন্দা অধিদফতরের একজন বিশ্বস্ত কর্মকর্তা এবং আইএসআইয়ের পক্ষে কাজ করছেন। সূত্র: ফিন্যান্সিয়াল পোস্ট

ইত্তেফাক/জেডএইচ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত