হার্ড ইমিউনিটির চিন্তা অনৈতিক: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

হার্ড ইমিউনিটির চিন্তা অনৈতিক: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রেয়াসুস।

করোনা মহামারি প্রতিরোধে হার্ড ইমিউনিটির চিন্তা করা অনৈতিক বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রেয়াসুস। সোমবার একটি সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন তিনি।

জানা গেছে, যখন একটি নির্দিষ্ট জনগোষ্ঠীর মধ্যে যদি নির্দিষ্ট অনুপাতে ভ্যাকসিন বা টিকা দেয়া যায়, তাহলে ওই কমিউনিটিতে আর সংক্রমণ হয়না। একে বলে হার্ড ইমিউনিটি।

অনেক বিশেষজ্ঞই বলেছেন যে ভ্যাকসিন না আসা পর্যন্ত হার্ড ইমিউনিটির জন্য করোনাকে স্বাভাবিকভাবে ছড়াতে দেওয়া উচিৎ।

এ নিয়ে গেব্রেয়াসুস বলেন, এই দৃষ্টিভঙ্গি "বৈজ্ঞানিকভাবে ও নৈতিকভাবে সমস্যাযুক্ত"। বৈশ্বিক মহামারিতো দূরের কথা জনস্বাস্থ্যের ইতিহাসে কোনো রোগের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতেই হার্ড ইমিউনিটি ব্যবহার করা হয়নি।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে করোনার সংক্রমণ শুরু হয়। বিশ্বে এখন পর্যন্ত ৩ কোটি ৭০ লাখের চেয়ে বেশি করোনা রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এছাড়া এ পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১০ লাখের বেশি মানুষ মারা গেছেন।

ইত্তেফাক/এআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত