শুধু বায়ু দূষণেই ৪ লাখ ৭০ হাজার নবজাতকের মৃত্যু: গবেষণা

শুধু বায়ু দূষণেই ৪ লাখ ৭০ হাজার নবজাতকের মৃত্যু: গবেষণা
প্রতীকী ছবি।

গত বছরে (২০১৯) যত মানুষের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে শুধু বায়ু দূষণেই ৪ লাখ ৭০ হাজার নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে বৈশ্বিক এক গবেষণা। এতে আরও বলা হয়, বায়ু দূষণে মোট ৬৭ লক্ষ মানুষ অকালে মৃত্যুর বরণ করেছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য-বিষয়ক সংস্থা হেলথ এফেক্টস ইন্সটিটিউট, দ্য ইন্সটিটিউট ফর হেলথ মেট্রিক্স ও ইভালুয়েশনস গ্লোবাল বার্ডেন অফ ডিজিজ-এর ‘বিশ্ব বায়ু পরিস্থিতি-২০২০’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদন স্টেট অফ গ্লোবাল এয়ারে দেখা গেছে, বায়ু দূষণে নবজাতক মৃত্যুর দিক থেকে শীর্ষে রয়েছে ভারত এবং আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চল। বায়ুদূষণের কারণে ভারতে জন্মের প্রথম মাসেই ১ লাখ ১৬ হাজারেরও বেশি শিশু মারা যায়। আর আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চলে সংখ্যাটি ২ লাখ ৩৬ হাজারেরও বেশি।

গবেষণা প্রতিবেদনে আরও জানা যায়, পৌনে পাঁচ লাখ শিশুর দুই- তৃতীয়াংশের মৃত্যুর সাথে সম্পৃক্ততা রয়েছে বাসগৃহের বায়ু দূষণ। বিশেষ করে খড়, কাঠ ও গোবর দিয়ে রান্নার সময় নির্গত ধোঁয়া থেকে এই দূষণের সৃষ্টি।

প্রতিবেদনের গবেষকরা জানিয়েছেন, প্রসূতিকালীন মায়েদের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গিয়েছে, বায়ু দূষণের কারণে গর্ভের সন্তানের আকৃতি অত্যন্ত ছোট হয়ে যায়, জন্মের পর শিশুর ওজন কম হয় অথবা অকাল জন্মের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। বায়ু দূষণের কারণে নবজাতকের মৃত্যুর হার অত্যন্ত বেশি।

হেলথ এফেক্টস ইন্সটিটিউটের প্রেসিডেন্ট ড্যান গ্রিনবাম বলেন, একটি শিশুর স্বাস্থ্য প্রত্যেক সমাজের ভবিষ্যতের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। নতুন এই গবেষণায় দক্ষিণ এশিয়া এবং আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চলে জন্মগ্রহণকারী শিশুদের উচ্চ ঝুঁকির ইঙ্গিত মিলেছে।

আরও পড়ুন: আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আমেরিকার একচ্ছত্র আধিপত্যের যুগ শেষ: রাশিয়া

সামগ্রিকভাবে প্রতিবেদনে দেখা গেছে, গত বছর বিশ্বজুড়ে বায়ু দূষণের কারণে যে ৬৭ লক্ষ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন তাই নয়, উচ্চ রক্তচাপ, তামাকজাত পণ্য ব্যবহার আর খাদ্যাভ্যাসের পরেই বায়ু দূষণ মৃত্যু ঝুঁকির চতুর্থ বৃহত্তম কারণ। গবেষকরা জানিয়েছেন, ‘বায়ু দূষণ নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারলে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হয়ে উঠবে।

ইত্তেফাক/এএইচপি/আরআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত