গুগলের বিরুদ্ধে মার্কিন সরকারের মামলা

গুগলের বিরুদ্ধে মার্কিন সরকারের মামলা
ছবি: সংগৃহীত

প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান গুগলের বিরুদ্ধে মামলা করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। মঙ্গলবার আস্থা ভঙ্গের অভিযোগে এই মামলা করা হয়। বলা হচ্ছে, এমন অভিযোগে করা এটিই সবচেয়ে বড় মামলা।

সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, মার্কিন বিচার বিভাগ গুগলের বিরুদ্ধে বিস্তারিত অভিযোগ এনেছে। অভিযোগে বলা হয়েছে, গুগল তার খাতের বাজার ব্যবস্থায় সুষম প্রতিযোগিতা নষ্ট করছে এবং নিজের প্রাধান্য বজায় রাখার চেষ্টা চালাচ্ছে। এতে ইন্টারনেটভিত্তিক অনুসন্ধান ও অনলাইন বিজ্ঞাপন ব্যবস্থায় এক ধরনের একচেটিয়া আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করে রেখেছে গুগল।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, গত কয়েক বছরের মধ্যে গুগলের মতো এত বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মার্কিন সরকারের তরফে এমন মামলা করা হয়নি। বলা হচ্ছে, এক বছরেরও বেশি সময় ধরে তদন্ত চালানোর পর এই মামলা করা হলো।

অবশ্য গুগলের আনুষ্ঠানিক বক্তব্যে দাবি করা হয়েছে যে, এই মামলা ‘অত্যন্ত ত্রুটিযুক্ত’। গুগল বলছে, ইন্টারনেটভিত্তিক বাজার এখনো প্রতিযোগিতামূলক আছে এবং এ ক্ষেত্রে গ্রাহকদের স্বার্থকেই অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘মানুষ গুগল ব্যবহার করে নিজেদের পছন্দে, বাধ্য হয়ে বা অন্য কোনো বিকল্প নেই বলে নয়।’

গুগলের বিরুদ্ধে করা এই মামলায় অংশ নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের ১১টি অঙ্গরাজ্য। রাজ্যগুলো হলো— আরকানসাস, ফ্লোরিডা, জর্জিয়া, ইন্ডিয়ানা, কেনটাকি, লুইসিয়ানা, মিসিসিপি, মিজৌরি, মনটানা, সাউথ ক্যারোলাইনা ও টেক্সাস।

গত বছর গুগল শুধু বিজ্ঞাপন থেকেই আয় করেছে ১৩৪ দশমিক ৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার—যা গুগলের মোট ব্যবসার ৮৪ শতাংশ। বিশ্লেষকদের আশঙ্কা, এই মামলার কারণে গুগলের বিজ্ঞাপনের বাজার ঝুঁকিতে পড়তে পারে।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ বিষয়ে কথা বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ রসেন। তিনি বলেন, ‘গুগল যেভাবে বাজারে একাধিপত্য তৈরি করেছে, তাতে প্রতিযোগিতার কোনো জায়গাই নেই। এটা হতে দেয়া যায় না।’

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রে মাইক্রোসফটের বিরুদ্ধে এ ধরনের মামলা হয়েছিল। বস্তুত, সেই মামলার পর ইন্টারনেট দুনিয়ায় ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছিল। খুলে গিয়েছিল বাজার। প্রচুর সংস্থা ব্যবসায় নেমে পড়ে। সে কারণেই তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে মাইক্রোসফটের বিরুদ্ধে ওই মামলাটিকে মাইলস্টোন হিসেবে দেখা হয়।

গুগলের বিরুদ্ধে এই মামলাও কি নেট দুনিয়ায় ব্যাপক পরিবর্তন আনতে পারবে? বিশেষজ্ঞরা এখনই সে বিষয়ে যথেষ্ট নিশ্চিত নন। তাদের বক্তব্য, ১৯৯৮ সালের বাজার আর ২০২০ সালের বাজার এক নয়। গুগল যে সাম্রাজ্য তৈরি করেছে, তা ভাঙা মুশকিল। বস্তুত, মানুষও গুগলের ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। ফলে অন্য কোনো সার্চ ইঞ্জিনের প্রতি নতুন করে মানুষের বিশ্বাস গড়ে তোলা খুব সহজ হবে না।

আরও পড়ুন:নিউ ইয়র্কে জনতা এক্সচেঞ্জ হাউজে জালিয়াতি : ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা

গুগল গতবছর বিজ্ঞাপন খাত থেকে যে অর্থ আয় করেছিল তার পরিমাণ গুগলের মোট আয়ের একটি গুরত্বপূর্ণ অংশ। মার্কিন সরকারের মামলার ফলে এ খাত অনেকটা ঝুঁকিতে পড়তে পারে। মার্কিন বিচার বিভাগ অনাস্থা জানিয়ে গুগলকে যেভাবে আদলতে নিয়ে এসেছে ঠিক তেমনি প্রযুক্তি খাতের অনেকেই এমন পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হতে পারে। দেশটির ফেডারেল ট্রেড কমিশন ফেসবুককে এক বছর ধরে তদন্ত করে চলেছে। তাদের তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ হলে ফেসবুকও এমন পরিস্থিতিতে পড়তে পারে।

সূত্র : সিএনএন

ইত্তেফাক/আরআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত