লাদাখ মানচিত্র বিতর্কে প্রশ্নবিদ্ধ টুইটার

লাদাখ মানচিত্র বিতর্কে প্রশ্নবিদ্ধ টুইটার
ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় মানচিত্র বিকৃত করার অভিযোগ উঠেছে টুইটারের বিরুদ্ধে। লাদাখের বিস্তীর্ণ এলাকাকেই চীনের অংশ হিসেবে দেখিয়েছিল টুইটার। তারপরেই টুইটারের বিরুদ্ধে নয়াদিল্লির সার্বভৌমত্বের অসম্মান করার অভিযোগ করেছেন ভারতীয় সংসদীয় প্যানেলের প্রধান।

বুধবার ( ২৮ অক্টোবর) মাইক্রোব্লগিং সাইট কর্তৃপক্ষ যৌথ সংসদীয় কমিটির ডাকে প্রশ্নোত্তর পর্বে মুখোমুখি হয় টুইটার কর্তৃপক্ষ। তথ্য সুরক্ষা আইনের অধীনে টুইটার কর্তৃপক্ষকে জেরা করে কমিটি। লাদাখকে চীনের মানচিত্রের অংশ হিসাবে দেখানোর অপরাধে টুইটারের কাছে কৈফিয়ত চেয়েছে সংসদীয় কমিটি। লিখিত আকারে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে মার্কিন তথ্যপ্রযুক্তি এই সংস্থাকে।

ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির সাংসদ মীনাক্ষী লেখি রয়টার্সকে বলেছেন, সংসদীয় কমিটির প্রশ্নে যথেষ্ট যুক্তি ছিল কিন্তু টুইটারের পক্ষ থেকে তারা পরিষ্কার কোনো ব্যাখ্যা দিতে পারেনি। তিনি আরো বলেন, এতবড় ভুলের ক্ষমা হয় না। ভারতীয় সংবিধান অনুসারে এই অপরাধের কারণে সাত বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে। ফলে টুইটারকে নিজের কাজের যথাযোগ্য ব্যাখ্যা দিতে হবে।

গত ২২ অক্টোবর কেন্দ্রীয় সরকার টুইটারের সিইও জ্যাক ডোর্সিকে চিঠি লিখে অসন্তোষ প্রকাশ করে। ভারতীয় মানচিত্র বিকৃত করার অভিযোগ ওঠে টুইটারের বিরুদ্ধে। ভারতের সার্বভৌমত্ব এবং অখণ্ডতায় আঘাত করা একেবারেই আপসহীন বলে জানিয়ে দেয় মোদী সরকার।

টুইটারের তরফে এক মুখপাত্র বৈঠকের বিষয়ে বলেন, ‘‘সাম্প্রতিক জিও ট্যাগিং-এর বিষয়টি দ্রুততার সঙ্গে সমাধান করেছেন আমাদের কর্মীরা । ভবিষ্যতে এ বিষয়ে সরকারের সঙ্গে নিয়মিত সমন্বয় রক্ষা করে চলব আমরা।’’

ইত্তেফাক/এএইচপি/এসআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত